কিভাবে নতুন ইউটিউব চ্যানেল সেটিং (YouTube Channel Setting) করবেন

YouTube Channel Setting

প্রফেশনাল মানের ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করতে চাইলে সঠিক ভাবে ইউটিউব চ্যানেল সেটিং (YouTube Channel Setting) করতে হবে। আপনি যদি একজন ভালো কন্টেন্ট ক্রেরিয়টর হয়ে থাকেন তাহলে আপনার জন্য প্রফেশনাল মানের চ্যানেল প্রয়োজন। আর প্রফেশনাল মানের চ্যানেল মানেই সঠিক চ্যানেল সেটিং বা অপটিমাইজ করা। ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করা সহজ কিন্তু চ্যানেল সেটিং করাটা কঠিন। আপনার চ্যানেল সেটিংয়ের উপর নির্ভর করে আপনার চ্যানেল রেংকে আসা। আপনার চ্যানেল রেংকে না আসলে কেউ দেখতে পাবে না। আপনি নিশ্চয় চান আপনার চ্যানেল সবাই দেখুক। আপনার চ্যানেল সবাইকে দেখাতে চাইলে সঠিক ভাবে সেটিং ও এসইও করতে হবে। আজকে আমরা কিভাবে নতুন ইউটিউব চ্যানেল সেটিং (YouTube Channel Setting) করবেন সে বিষয় নিয়ে আলোচনা করবো।

ইউটিউব চ্যানেল কি :

ইউটিউব চ্যানেল কি ? আমার আগের একটি আর্টিকেলে লিখেছি পারলে দেখে নিবেন। এখানে কিছু ধারনা দেওয়ার জন্য লিখছি। ইউটিউব হচ্ছে ভিডিও শেয়ারিং প্লাটফর্ম। যার যাত্রা শুরু হয় ২০০৫ সালে। এখানে ভিডিও আপলোড করা হয়। যে কেহ ভিডিও আপলোড করতে পারে এবং যে কেহ সে ভিডিও গুলো দেখতে পারে। তবে ভিডিও গুলো হতে হবে জ্ঞান মূলক, শিক্ষনীয় ও আনন্দদায়ক। যা মানুষের উপকারে আসে এবং কাজে লাগে। ভিডিও আমরা সবাই কম বেশি দেখে থাকি। ভিডিও আমাদেরকে আনন্দ দেয়, বিনোদন দেয়। যা থেকে কিছু শিখে আমরা বাস্তব জীবনে প্রয়োগ করতে পারি। তাই ইউটিউবাররা আকর্ষনীয় ও জ্ঞানমুলক ভিডিও কন্টেন্ট তৈরি করে ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড করে থাকে। আপনিও চাইলে শিক্ষনীয় ও আকর্ষনীয় ভালো ভিডিও কন্টেন্ট তৈরি করে ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড করতে পারেন।

পড়ুন :

কিভাবে ইউটিউব থেকে আয় করবেন জানতে হলে পড়ুন

কিভাবে ইউটিউব চ্যানেল সেটিং (YouTube Channel Setting) করবেন :

বর্তমানে ইউটিউব চ্যানেলে কম্পিটিশন ব্যাপক। সবাই চায় তার নিজের ভিডিও সবার উপরে উঠুক। তাই ভিডিওকে রেংক করাতে হলে সঠিক ভাবে সেটিং ও এসইও করতে হবে। তার আগে একটি ব্রান্ড চ্যানেল খুলতে হবে। চ্যানেলে Logo সেট করতে হবে, Channel art সেট করতে হবে, About সেকশন সঠিক ভাবে অপটিমাইজ করতে হবে। তারপর সেটিংসের কাজ সম্পূর্ন করতে হবে। আসুন কিভাবে সেটিং সেকশনের কাজ গুলো করা যায় তা জেনে নেই।

প্রথমে একটি ব্রাউজার ওপেন করুন। তাতে www.youtube.com লিখে সার্চ করুন। তাতে আপনার চ্যানেলের আইকোনে ক্লিক করুন। তখন একটি ড্রপ ডাউন লিস্ট দেখতে পাবেন। তাতে YouTube Studio তে ক্লিক করুন। তখন নিচের মতো একটি ইন্টারফেস দেখতে পাবেন।

Screen shot :

Screenshot_8

এবার এখানে বাম পাশে লাল আয়াতাকার ঘরে Settings বাটনে ক্লিক করুন। তারপর নিচের মতো একটি ইন্টারফেস দেখতে পাবেন।

Screen shot :

Screenshot_7

এই ইন্টারফেসে সেটিংসের কাজ গুলো সঠিক ভাবে সম্পূর্ন করতে হবে। তাহলে মোটামুটি চ্যানেল সেটিংসের কাজ গুলো হয়ে যাবে। উপরে লাল তীর চিহ্ন দেওয়া টপিক গুলোর কাজ একে একে সম্পূর্ন করতে হবে।

General :

জেনারেল সেটিংসে কোন পরিবর্তনের প্রয়োজন নেই। এখানে defaults unites Currency USD -Us dollar রয়েছে। এটাই থাকবে।

Channel :

এবার এখানে Basic info, Advanced setting, Feature eligibility এই তিনটি টপিকের কাজ করতে হবে। এখানে Basic info প্রথম ঘরে Country of residence ঘরে আপনার দেশের নাম সেট করে দিন। আপনি যদি বাংলাদেশের হয়ে থাকেন তাহলে বাংলাদেশ সেট করে দিন। আর যদি ইন্ডিয়ার হয়ে থাকেন তাহলে ইন্ডিয়া সেট করে দিন। অর্থাৎ আপনি যে দেশের বাসিন্দা সে দেশের নাম সেট করে দিন। তারপর Keywords ঘরে আপনার চ্যানেল রিলেটেড কিছু কিওয়ার্ড সেট করে দিন। অর্থাৎ আপনার চ্যানেল কি সম্পর্কে সে বিষয়ে কিছু কিওয়ার্ড সেট করে দিন।

Advanced setting থেকে Audience এর নিচে তিনটি গোলাকার বৃত্ত দেখতে পাচ্ছেন। এখানে বাচ্চাদের জন্য ভিডিওটি দেখাতে চাইলে Yes, set this channel as made for kids. I always upload content that’s made for kids এ ক্লিক করে বৃত্তটি ভারট করে দিন। আর যদি ভিডিওটি বড়দের জন্য দেখাতে চান তাহলে No set this channel as not made for kids. I nearer upload content that’s made for kids এ ক্লিক করে বৃত্তটি ভরাট করে দিন। আর প্রতিটি ভিডিওতে বার বার রিভিউ দিতে চাইলে শেষ বৃত্তটি ক্লিক করে ভরাট করে দিন। এরপর Automatic Captions এ টিক না দেওয়ায় ভালো। তারপর Subscribe Count সবাইকে দেখাতে চাইলে টিক চিহ্ন দিন আর যদি না দেখাতে চান তাহলে টিক উঠিয়ে দিন। Advertisement ঘরে বিজ্ঞাপন না দেখাতে চাইলে টিক দিন। আর দেখাতে চাইলে টিক উঠিয়ে দিন। other setting আপাততো প্রয়োজন নেই।

Feature Eligibility প্রথম ঘরে default Feature ডিফল্ড হিসাবে ইনাবল রয়েছে। অর্থাৎ যেমন আছে তেমনি থাকবে। এখানে কোনো কিছু করার প্রয়োজন নেই। দ্বিতীয় ঘরে Feature that require phone verification ইনাবল করা খুবই গুরুত্বপূর্ন । কারন ফোন ভেরিফিকেশন না হলে ১৫ মিনিটের বেশি ভিডিও আপলোড করতে পারবেন না। কাস্টম থামলিন ব্যবাহর করতে পারবেন না। Live Streaming করতে পারবেন না। চ্যানেল মনিটাইজ করতে পারবেন না। তাই ফোন ভেরিফিকেশন করা অতীব জরুরী। ফোন ভেরিফিকেশন কিভাবে করতে হয় তা এই লিংকে ক্লিক করে জেনে নিতে পারেন। লিংকটি হলো : https://www.ictcorner.com/youtube-channel/ আর্টিকেলটি ভালো ভাবে পড়লে আপনার চ্যানেল বা ফোন ভেরিফাই করতে পারবেন। এবার সেভ বাটনে ক্লিক করুন। আপনার চ্যানেল সেকশনের কাজ শেষ।

Upload defaults :

এই সেকশনে দুটি অপশন দেখতে পাচ্ছেন। এক, Basic info দুুই, Advanced setting . Basic info : ব্যাসিক ইনফোতে ডিফল্ট হিসাবে টাইটেল, ডিসক্রেফশন, ভিজিবিলিটি, ট্যাগ সেট করে রাখতে পারেন। প্রতিটি ভিডিও আপলোডের সময় এখানে যা সেট করে রাখবেন তা ডিফল্ড হিসাবে কাজ করবে। Advanced Setting : এডভান্স সেটিংসে ডিফল্ড হিসাবে যা সেট করা আছে তা রেখে দিন। এবার সেভ বাটনে ক্লিক করে সেভ করে দিন।

Permissions :

এই সেকশনের কাজ হচ্ছে আপনি যদি কাউকে নতুন ম্যানেজার বা এডিটর বা ভিউয়ার হিসাবে নিযুক্ত করতে চান তা নিযুক্ত করতে পারবেন। সে জন্য কি করতে হবে। আপনাকে উপরের কর্ণারে INVITE এ ক্লিক করে তাকে ইমেইল করতে হবে। সে রিসিভ করলে তাকে ম্যানেজার, এডিটর বা ভিউয়র হিসারে নিযুক্ত করতে পারবেন। তারপর সেভ বাটনে ক্লিক করে সেভ করে দিন।

Community :

কমিউনিটিতে রয়েছে Automated Filter ‍ও defaults . নতুন ইউটিউবারদের কমিউনিটি সেকশনে তেমন কোন কাজ নেই। আপনি যদি এডভান্সড বিষয় গুলো জানতে চান তা এখান থেকে এক এক করে জেনে নিতে পারেন এবং সেট করে দিতে পারেন।

Agreements :

এগরিমেন্টসে আপনি ইউটিউব চ্যানেল কিভাবে ব্যবহার করবেন তার বিস্তারিত নিয়ম কানুন গুলো জানতে পারবেন। ইউটিউবের Trams & Conditions গুলো ভালো ভাবে জেনে নিতে পারবেন। সে অনুযায়ী আপনাকে কাজ করতে হবে। এবার সর্বশেষে সেভ বাটনে ক্লিক করে সেভ করে দিন। আপনার মোটামুটি সেটিং অফশনের কাজ শেষ।

আরো পড়ুন :

কিভাবে ইউটিউব চ্যানেল তৈরি ও কাস্টমাইজ করবেন

কিভাবে ইউটিউব চ্যানেলে End screen, Cards & subscribe বাটন সেট করবেন

পরিশেষে বলা যায় উপরের আর্টিকেল পড়ে ইউটিউব চ্যানেল সেটিং (YouTube Channel Setting) সম্পর্কে বিষদ ভাবে জানতে পেরেছেন। আশা করি এই আর্টিকেল পড়ে আপনার চ্যানেলের সেটিংস গুলো নিজে নিজে করতে পারবেন। আর যদি বুঝতে কোনো সমস্যা হয় কমেন্টে জানাবেন। আশা করি উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করবো। আর্টিকেলটি পড়ে যদি ভালো লেগে থাকে বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করবেন।

Related posts

Leave a Comment