“এসইও কি এবং এসইও (SEO) করে আয় করার টিপস (Tips) সমূহ “

SEO Tips

অনলাইনে ব্লগসাইট বা ওয়েবসাইট তৈরি করতে হলে এসইও জানতে হবে। এসইও করা ছাড়া আপনার সাইটকে কেউ খোজে পাবে না। এসইও হচ্ছে এমন একটি মাধ্যম যা কোনো সাইটকে সহজে খোজে পেতে সহায়তা করে থাকে। তাই ওয়েবসাইট বিল্ডার্সদের বা ডিপলোপারদের এসইও জানা প্রয়োজন। এছাড়া এসইও শিখে হাজার হাজার ডলার ইনকাম করা যায়। ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস গুলোতে এসইও কাজের চাহিদা প্রচুর। যদি সম্পুন্ন ভাবে এসইও কাজ শিখতে পারেন তাহলে আজীবন কাজ করে শেষ করতে পারবেন না। পৃথিবীতে অনলাইন ভিত্তিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান যতদিন থাকবে এসইও কাজ ততো দিন থাকবে। সঠিক ভাবে এসইও কাজ জানা থাকলে অনলাইন জগতে আজীবন কাজ করতে পারবেন এবং ভালো পরিমান ইনকাম জেনেরেট করতে পারবেন। এই আর্টিকেল পড়লে এসইও বিষয়ে বিস্তারিত জানতে পারবেন। আজকে আমরা এসইও (SEO) বিষয়ক বিভিন্ন টিপস (Tips) সম্পর্কে আলোচনা করবো।

এসইও কি :

এসইও (SEO) এর পূর্নরূপ হচ্ছে Search Engine Optimization . সার্চ ইন্জিন অপটিমাইজেশন বলতে কোনো টপিককে সার্চ ইন্জিন গুলোতে লিখে সার্চ করলে যাতে সার্চ ইন্জিন পেজের টপে দেখা যায় তাকে সার্চ ইন্জিন অপিমাইজেশন বা এসইও করা বুঝায়। সহজ ভাবে বললে কোন কিওয়ার্ড সার্চ ইন্জিনে লিখে সার্চ করলে যাতে সহজে খোজে পাওয়া যায় তাকে সার্চ ইন্জিন অপটিমাইজেশন বা এসইও করা বলে। এসইও এমন জিনিস গুগুলে কোন কিছু লিখে সার্চ করলে লক্ষ লক্ষ তথ্য থেকে কান্খিত তথ্য খোজে গুগুল টপে নিয়ে আসাই হচ্ছে এসইও এর কাজ। সার্চ ইন্জিন গুলো তাদের এলগরিদম পদ্ধিতে অনুসন্ধান করে কান্খিত তথ্য টপে নিয়ে এসে থাকে। তাই এসইও বা সার্চ ইন্জিন অপটিমাইজেন এমন এক মাধ্যম যা সঠিক ভাবে, সঠিক পদ্ধতিতে করতে পারলে সহজে কোনো তথ্য খোজে পাওয়া যায়।

এসইও কেন প্রয়োজন :

এসইও এর প্রয়োজনীয়তা ব্যাপক। কোনো সাইটকে গুগুল টপে আনতে হলে এসইও প্রয়োজন। অনলাইন মার্কেটিংয়ে সফলতা পাওয়ার জন্য এসইও প্রয়োজন। ব্লগসাইট বা ওয়েবসাইটের ভিজিটর বৃদ্ধির জন্য এসইও প্রয়োজন। সার্চ ইন্জিনে র‌্যান্ক পাওয়ার জন্য এসইও প্রয়োজন। সঠিক ভাবে এসইও করে সাইটকে গুগুলের ফাস্ট পেজে আনতে পারলে সবাই তা দেখতে পাবে। তখন আপনার সাইটের ভেলু বাড়বে, ভিজিটর বৃদ্ধি হবে এবং ব্যবসা সমৃদ্ধি লাভ করবে। তাই একটি ব্লগসাইট বা ওয়েবসাইটকে সফল করতে হলে এবং তা থেকে আয় করতে হলে এসইও করা প্রয়োজন।

জনপ্রিয় সার্চ ইন্জিন :

সার্চ ইন্জিন কি ? সার্চ ইন্জিন হচ্ছে এক ধরনের ডাটা স্টোরেজ সার্চ মেশিন। যেখানে বিভিন্ন ধরনের ডাটা বা তথ্য গচ্ছিত থাকে। সেখান থেকে ভিজিটরদের তথ্য সরবরাহ করে থাকে। ভিজিটর কোন কিওয়ার্ড লিখে সার্চ করলে তা তাৎক্ষনিক ভাবে সরবরাহ করে থাকে। কিছু জনপ্রিয় সার্চ ইন্জিনের নাম নিচে উল্লেখ করা হলো :

  • Google
  • Bing
  • Yahoo
  • Yandex
  • Baidu
  • Ask.com
  • Aol.com
  • DuckDackGo

এসইও এর প্রকারভেদ :

এসইও প্রধানত তিন প্রকার হয়ে থাকে। ১. অনপেজ এসইও ২. অফপেজ এসইও ৩. টেকনিক্যাল এসইও। এই তিন প্রকার এসইও প্রোপার ওয়েতে শিখতে পারলে আপনার এসইও কাজ মোটামুটি শিখা হয়ে যাবে। আপনি যে কোন ব্লগসাইট বা ওয়েবসাইট এসইও করতে পারবেন। যে কোন ব্লগসাইট বা ওয়েবসাইটকে সার্চ ইন্জিনের টপে নিয়ে আসতে পারবেন। আসুন এই তিন প্রকার এসইও সম্পর্কে বিস্তারিত জানার চেষ্টা করবো।

১. অনপেজ এসইও :

অনপেজ এসইও কি ? অনপেজ এসইও হচ্ছে কোনো ব্লগসাইট বা ওয়েবসাইটের ভিতরে যে সমস্ত কাজ করা হয় তাকে অনপেজ এসইও বলা হয়ে থাকে। সহজ ভাবে বলা যায় ওয়েবসাইটের ভিতরে অপটিমাইজ করাই হচ্ছে অনপেজ এসইও। অনপেজ অপটিমাইজেশন হচ্ছে সার্চ ইন্জিনের গুরুত্বপূর্ন বিষয়। অনপেজ অপটিমইজেশন করতে ভূল হলে আপনার সাইটকে খোজে পাওয়া যাবে না। তাই অত্যন্ত গুরুত্বসহকারে অনপেজ এসইও কাজ সম্পূন্ন করতে হবে। অনপেজ এসইও সঠিক ভাবে করতে হলে নিচের কাজ গুলো প্রোপার ওয়েতে করতে হবে।

১. ডোমেন ও হোস্টিং সেটাপ করা

২. কিওয়ার্ড রিসার্চ করা

৩. টাইটেল অপটিমাইজ করা

৪. মেটা ট্যাগ ও মেটা ডিসক্রিপশন অপটিমাইজ করা

৫. গুগুল ইনডেক্স ও সাইট ম্যাপ সাবমিট করা

৬. কন্টেন্ট অপটিমাইজ করা

৭.পারমালিংক সেটাপ করা

৮. ইমেজ অলটার ট্যাগ দেওয়া

৯. Html Tag অপটিমাইজ করা

১০. সাইটের স্পীড বৃদ্ধি করা

উপরোক্ত কাজ গুলি সঠিক ভাবে করতে পারলে অনপেজ অপটিমাইজ করা সম্পূন্ন হবে। এই কাজ গুলো কিভাবে করতে হবে জানতে হলে নীল লেখা টপিকে ক্লিক করুন। কিভাবে অনপেজ এসইও করবেন।

২. অফপেজ এসইও :

অপপেজ এসইও কি ? অফপেজ এসইও হচ্ছে ব্লগসাইট বা ওয়েবসাইটে বাহিরে যে কাজ গুলো করা হয় তাকে অফপেজ এসইও বলা হয়ে থাকে। সহজ ভাবে বলা যায় ওয়েবসাইটে বাহিরে কাজ গুলো অপটিমাইজ করাই হচ্ছে অফপেজ এসইও করা। অপপেজ এসইও বলতে আমরা সাধারনত ব্যাকলিংকে বুঝে থাকি। আপনার সাইটের বেশি বেশি ব্যাকলিংক তৈরি করতে হবে। যত ব্যাকলিংক তৈরি করবেন ততো আপনার সাইট র‌্যান্কে উপরে উঠবে। অফপেজ এসইও কাজ গুলো সম্পূন্ন করতে হলে নিচের কাজ গুলো করতে হবে।

১. লিংক বিল্ডিং বা ব্যাকলিংক করা

২. ডিরেক্টরি সাবমিশন করা

৩. সোসাল বুকমার্ক করা

৪. ফোরাম পোস্টিং করা

৫. ব্লগ কমেন্টিং করা

৬. আর্টিকেল সাবমিশন করা

৭. ভিডিও মার্কেটিং করা

৮. গেস্ট পোস্টিং করা

৯. সোসাল মার্কেটিং করা

১০. Question & Answer সাবমিশন করা

উপরোক্ত কাজ গুলো সঠিক ভাবে করতে পারলে অফপেজ এসইও কাজ গুলো সম্পূন্ন হবে। আর এই কাজ গুলো সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে হলে নীল লেখা টপিকে ক্লিক করুন। কিভাবে অফপেজ এসইও করবেন।

৩. টেকনিক্যাল এসইও :

টেকনিক্যাল এসইও হচ্ছে টেকনিক্যাল পদ্ধতিতে যে এসইও করা হয় তাকে টেকনিক্যাল এসইও বলে। প্রশ্ন হচ্ছে টেকনিক্যাল পদ্ধতি কি ? এটা সম্পর্কে জানতে হলে গোটা প্রক্রিয়টি পড়তে হবে। টেকলিক্যাল এসইও সরাসরি ওয়েবসাইটের র‌্যান্কের উপর প্রভাব ফেলে। টেকনিক্যাল এসইও সটিক ভাবে না করলে আপনার ওয়েবসাইট র্যান্ক করবে না। আপনার ওয়েবসাইটের ডিজাইন কেমন হবে, মোবাইল ফ্রেন্ডলি কিনা, রোবোট টেক্সট এরোর, সাইটের স্পীড কেমন ইত্যাদি টেকনিক্যাল এসইও মাধ্যমে সম্পূন্ন করতে হবে। টেকনিক্যাল কাজ গুলো করতে হলে নিচের কাজ গুলো সম্পুন্ন করতে হবে।

১. ওয়েবসাইট ট্রেকচার এবং ডিজাইন

২. SSL সার্টিফিকেট যুক্ত করা

৩. মোবাইল ফ্রেন্ডলি সাইট

৪. ব্রোকেন লিংক

৫. রোবট টেক্সট ফাইল

৬. Crawl এরোর পেজ

৭. ৪০৪ পেজ

৮. পেজ লোডিং স্পীড

৯. থীন কন্টেন্ট

১০. গুগুল এনালাইটিকস

উপরোক্ত কাজ গুলো সঠিক ভাবে করতে পারলে টেকনিক্যাল এসইও কাজ গুলো সম্পূন্ন হবে। এই টেকনিক্যাল কাজ গুলো সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে হলে নীল লেখা টপিকে ক্লিক করুন। কিভাবে টেকনিক্যাল এসইও করবেন।

সইও (SEO) করে আয় করার টিপস (Tips) সমূহ :

অনলাইনে এসইও করে বিভিন্ন পদ্ধতিতে আয় করতে পারবেন। অনলাইন মার্কেটপ্লেস গুলোতে প্রচুর কাজ পাওয়া যায়। তবে আপনাকে সঠিক ভাবে এসইও কাজ শিখতে হবে। এসইও (SEO) শিখে আয় করার বিভিন্ন টিপস (Tips) সমূহ নিচে তুলে ধরা হলো :

১. ব্লগিং করে :

ব্লগিং হচ্ছে লেখালেখির কাজ। আপনার যদি কোন বিষয়ে লেখার অভ্যাস থাকে তাহলে ব্লগিং করে আয় করতে পারবেন। আপনাকে একটি ব্লগসাইট তৈরি করতে হবে। ওয়ার্ডপ্রেস সাইট বা ব্লগার ডট কম থেকে একটি ব্লগসাইট তৈরি করতে পারেন। ব্লগসাইট তৈরি করা কোনো কঠিন কাজ না। ইউটিউবে অনেক ভিডিও পাবেন যা দেখে দেখে একটি ব্লগ সাইট তৈরি করে নিতে পারবেন। ব্লগসাইট তৈরি করে সেখানে প্রতিনিয়ত আর্টিকেল পাবলিশ করুন এবং প্রোপার ওয়েতে এসইও করুন। সঠিক ভাবে এসইও করতে পারলে আপনার ব্লগসাইটে প্রচুর ভিজিটর আসবে। যখন আপনার ব্লগসাইটে মোটামুটি ভিজিটর আসবে তখন গুগুল এডসেন্সের জন্য আবেদন। গুগুল এডসেন্স আপনার আবেদন এপ্রোপ করলে আপনার ব্লগসাইটে বিভিন্ন এড শো করতে থাকবে। এই এড গুলো যখন ভিজিটররা দেখবে তখন তাতে ক্লিক করলে আপনার একাউন্টে ডলার জমা হতে থাকবে। এ ভাবে ব্লগসাইট প্রোপার ওয়েতে এসইও করে সাইটে ভিজিটর বৃদ্ধি করে আয় করতে পারেন।

২. এফিলিয়েট মার্কেটিং করে :

এফিলিয়েট মার্কেটিং হচ্ছে কোন কোম্পানী পন্য বা প্রোডাক্ট সেল করে দেওয়ার বিনিময়ে যে কমিশন পাওয়া যায় তাকে এফিলিয়েট মার্কেটিং বলে। এই এফিলিয়েট পন্য সেল করতে হলে আপনার একটি ল্যান্ডিং পেজ প্রয়োজন হবে। তাই আপনাকে একটি সুন্দুর ও আকর্ষনীয় ল্যান্ডিং পেজ তৈরি করতে হবে। সেখানে আপনাকে এফিলিয়েট প্রোডাক্টের কন্টেন্ট বা ছবি পোস্ট করতে হবে। এই কন্টেন্টকে সঠিক ভাবে এসইও করতে হবে। সঠিভ ভাবে এসইও করলে আপনার ল্যান্ডিং পেজে প্রচুর ভিজিটর আসবে। ফলে আপনার সেল জেনেরেট হবে। অর্থাৎ আপনার পন্য বিক্রয় হবে। এই ভাবে ল্যান্ডিং পেজ এসইও করে আয় করতে পারেন।

৩. ই-কমার্স সাইট এসইও করে :

ই-কমার্স সাইট হচ্ছে অনলাইন ব্যবসায়িক সাইট। আপনার যদি অনলাইনে কোনো ই-কমার্স সাইট থেকে থাকে। সেখানে আপনার প্রোডাক্ট সম্পর্কিত কন্টেন্ট রিভিও পোস্ট করতে হবে। প্রোডাক্টের ছবি পোস্ট করতে হবে। এখানে আপনার প্রোডাক্টের কন্টেন্ট ও ছবি কে এসইও করতে হবে। কারন এসইও ছাড়া আপনার প্রোডাক্টের কন্টেন্ট ও ছবি ভিজিটর দেখতে পাবে না। আপনার প্রোডাক্ট সর্ব সাধারনের কাছে পৌঁছাতে হলে এসইও অপরিহার্য। তাই ই-কমার্স সাইট এসইও করে প্রোডাক্ট বিক্রি করে আয় করতে পারেন।

৪. ফ্রিল্যান্সিং করে :

অনলাইনে ফ্রিল্যান্সিং করার জন্য অনেক মার্কেটপ্লেস রয়েছে। এই ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস গুলোতে এসইও সম্পর্কিত প্রচুর কাজ পাওয়া যায়। আপওয়ার্ক, ফাইবার, ফ্রিল্যান্সার, গুরু ইত্যাদি সাইট রয়েছে। এই সাইট গুলোতে প্রতিদিন হাজার হাজার এসইও কাজ আপলোড হচ্ছে। আপনি সেখানে বিড করে বা গিগ পাবলিশ করে এসইও কাজ করতে পারেন। এই ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস গুলোতে এসইও কাজ করে আয় করতে পারেন।

৫. বিভিন্ন কোম্পানীর এসইও এক্সপার্ট হিসেবে :

বর্তমানে এসইও এক্সপার্টের কদর অনেক বেশি। বিভিন্ন কোম্পানী গুলো তাদের ওয়েবসাইট মেইনটেন্স করার জন্য এসইও এক্সপার্ট নিয়োগ দিয়ে থাকেন। প্রতিটি কোম্পানীর ওয়েবসাইট রয়েছে। তাদের ওয়েবসাইট গুলো পরিচালনা করার জন্য প্রতিনিয়ত এসইও করতে হয়। তাদের হাজার হাজার প্রোডাক্ট আপলোড দিতে হয় এবং সে গুলো এসইও করতে হয়। তাই তাদের এসইও এক্সপার্টের প্রয়োজন পড়ে। আপনি এই ধরনের কোম্পানী গুলোতে এসইও এক্সপার্ট হিসাবে চাকুরী করে আয় করতে পারেন।

উপরোক্স এসইও টিপস (SEO Tips) গুলো সঠিক ভাবে ফলো করুন এবং হাজার হাজার ডলার আয় করুন। এই এসইও টিপস (SEO Tips) গুলো সঠিক ভাবে ইউটিলাইজ করতে পারলে আপনার সাইট গুগুল ফাস্ট পেজে আসবে। আপনার সাইটে ভিজিটর বৃদ্ধি পাবে। আপনার সাইটে ভিজিটর বৃ্দ্ধি মানে আপনার সাইট হিট। আপনার সাইট দ্রুত র‌্যান্কিংয়ে এগিয়ে যাবে।

শেষ কথা :

পরিশেষে কথা হচ্ছে, এসইও কোন সাইটকে গুগুল টপে আনতে সহায়তা করে থাকে। এসইও এর মাধ্যমে কোনো তথ্য সহজে খোজে পাওয়া যায়। তার জন্য এসইও টিপস (SEO Tips) গুলো সম্পর্কে জানতে হবে। এসইও যে কোনে সাইটের ভিজিটর বৃদ্ধিতে সহায়তা করে থাকে। ফলে সাইটের র‌্যান্ক বৃদ্ধি পায়। এছাড়া এসইও শিখে বিভিন্ন উপায়ে আয় করা যায়। অনলাইন মার্কেটপ্লেসে কাজের অভাব নেই। ফাইভার, আপওয়ার্ক, পিপলপারআওয়ার, ফ্রিল্যান্সার, গুরু ইত্যাদি সাইটে প্রচুর এসইও সম্পর্কিত কাজ পাওয়া যায়। তাই এসইও শিখুন নিজেকে স্বাবলন্বী করে তুলুন। আর্টিকেল সম্পর্কিত কোন তথ্য জানার থাকলে কমেন্টে জানাবেন। আশা করি উত্তর পাবেন। আর আপনাদের কোন পরামর্শ থাকলে তাও জানাতে ভূলবেন না।

Related posts

Leave a Comment