মোবাইলে ইনকাম (Mobile Income) করার সহজ ৫টি উপায়

Mobile Income

অনলাইনে ইনকাম করা মানে সোনার হরিণ পাওয়া। অনলাইনে কে না ইনকাম করতে চায়। অনলাইন ইনকামকে কেউ পেশা হিসাবে নেয় আবার কেউ সাইট ইনকাম হিসাবে নেয়। যারা পেশা হিসাবে ইনকাম করতে চান তাদের প্রচুর পরিশ্রম করতে হবে। তাহলে অনলাইন ইনকামে সফলকাম হতে পারবেন। আর যারা সাইট ইনকাম হিসাবে নিতে চান তারা সহজে কিছু ইনকাম করতে পারেন। অর্থাৎ লেখা পড়ার পাশাপাশি বা গৃহ কাজকর্মের পাশাপশি বা চাকুরীর পাশাপাশি কিছু ইনকাম করতে পারেন। কে না চায় তার কিছু বাড়তি ইনকাম হোক। আপনি যদি বাড়তি ইনকাম করতে চান, তাও আবার মোবাইল দিয়ে তাহলে কেমন হয়। আপনি হয়তো ভাবছেন কম্পিউটার নেই, ল্যাপটপ নেই, কেমনে ইনকাম হবে। চিন্তা নেই আপনার যদি এন্ড্রয়েড মোবাইল ফোন বা স্মার্টফোন থাকে তাহলে আপনি অনলাইন থেকে অনায়াসে মোবাইলে ইনকাম (Mobile Income) করতে পারবেন। আসুন মোবাইল দিয়ে কিভাবে সহজে ইনকাম করা যায় তা জেনে নেই।

মোবাইলে ইনকাম (Mobile Income) করার সহজ উপায় সমূহ :

অনেকের অনলাইনে ইনকাম করার প্রবল আগ্রহ আছে। কিন্তু কোন উপায় জানা নেই বা তেমন কোন ডিভাইস নেই। তাদের জন্য আজকের এই আর্টিকেল। আজকের আলোচনায় আপনি জানতে পারবেন কিভাবে সহজে অনলাইন থেকে ইনকাম করা যায় তাও আবার নিজের পকেটের মোবাইল দিয়ে। আপনার পকেটের এন্ড্রয়েড মোবাইল বা স্মার্টফোন দিয়ে নিম্ন লিখিত পদ্ধতিতে সহজে অনলাইন থেকে ইনকাম করতে পারবেন।

১. মাইক্রোওয়ার্কারস সাইট :

মাইক্রোওয়ার্কারস সাইট একটি জব সাইট। এখানে প্রচুর জব বা কাজ পাওয়া যায়। এখানে অসংখ্য ছোট ছোট কাজ পাওয়া যায়। যেমন : সাইন আপ করা, ডাউনলোড করা, ইউটিব চ্যানেলে কমেন্টস করা, ফেসবুকে কমেন্টস করা ইত্যাদি। এছাড়া টুইটারে পোস্ট করা, ফেসবুকে পোস্ট করা, এনসার সাইটে প্রশ্ন করা ও উত্তর দেওয়া এ ধরনের অসংখ্য কাজ রয়েছে। এই সাইটে আপনি মোবাইলে সহজে এই কাজ গুলো করে ইনকাম করতে পারবেন। এই সাইটে ছোট ছোট কাজ করতে হয়। ১৫ থেকে ২০ মিনিটে একটি কাজ সম্পূর্ন করা যায়। এমাউন্ট সাধারনত .১০ সেন্ট থেকে শুরু করে ২ সেন্ট পর্যন্ত দেওয়া হয়ে থাকে। তবে বড় বড় কাজ গুলোতে ৫ ডলার থেকে ১০ ডলার পর্যন্ত দেওয়া হয়ে তাকে। প্রথম দিকে বড় কাজ গুলো করতে যাবেন না। কারন সমস্যায় পড়তে পারেন। বড় কাজ গোলোতে প্রথম দিকে পেমেন্ট তোলা সমস্যা হয়ে থাকে। প্রথমে আপনি ছোট ছোট কাজ শুরু করে ইনকাম করতে থাকুন। এই সাইটে কাজ করতে হলে আপনাকে রেজিষ্টেশন করতে হবে। রেজিস্ট্রেশন করার কিছু প্রক্রিয়া রয়েছে। জানতে হলে এই লিংকে ক্লিক করুন। লিংকটি হলো – https://www.ictcorner.com/microworkers/ এই লিংকে গিয়ে রেজিস্ট্রেশন সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে রেজিস্ট্রেশন করে নিন। তারপর কাজের জন্য এপলাই করুন। অসংখ্য কাজ দেখতে পাবেন। আপনি যে কাজ গুলো করতে পারেন সে ‍গুলো করে জমা দিন।

২. মোবাইলে ইউটিউব চ্যানেল :

ইউটিউব চ্যানেল সম্পর্কে আমাদের সবারই কম বেশি জানা আছে। ইউটিউবে বিভিন্ন ধরনের ভিডও দেখা যায়। প্রতিদিন ইউটিউবে অসংখ্য ভিডিও আপলোড করা হয়। এটা কে করছে ? আপনার আমরা মতো অসংখ্য ভিডিও ক্রেয়িটাররা ভিডিও তৈরি করে আপলোড করছে। তাই আপনি একটি ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করে সেখানে ভিডিও আপলোড করে মোবাইলে ইনকাম (Mobile Income) করতে পারেন। আর এই ইউটিউব চ্যানেল তৈরি এবং ভিডিও তৈরি আপনি আপনার মোবাইলের মাধ্যমে করতে পারবেন। কিভাবে একটি ইউটিউব চ্যানেল মোবাইলের মাধ্যমে তৈরি করবেন জানতে হলে এই লিংকে ক্লিক করুন। লিংকটি হলো- https://www.ictcorner.com/youtube-channel-on-mobile/ তার আগে এই আর্টিকেলটি পুরাপুরি পড়ে নিন। তাহলে মোবাইলে ইনকাম করা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন। ইউটিউবের মতো অসংখ্য প্লাটফর্ম রয়েছে যেমন : টিকটক, ফেসবুক, স্নাপচ্যাট ইত্যাদি। এই সব সোসাল সাইটে মোবাইলের মাধ্যমে ভিডিও তৈরি করে আপলোড করে ইনকাম করতে পারেন। আপনার মোবাইলের ক্যামেরা দিয়ে ভিডিও করে তা আপনার মোবাইলে এডিটিং করে আপনার চ্যানেল গুলোতে আপলোড করতে পারবেন। তা হতে পারে কোন বিনোদন মুলক বা কোন কমেডি বা কোন গান বা খেলাধুলা বা কোন শিক্ষা মুলক ভিডিও। যা মানুষকে আনন্দ দেয় বা মানুষের উপকারে আসে এমন ভিডিও আপলোড করুন। মানুষের ক্ষতিকর বা অকল্যান মূলক কোন ভিডিও কখনো আপলোড করবেন না। তাহলে আপনার চ্যানেল যে কোন সময় ব্যান্ড হয়ে যেতে পারে।

৩. মোবাইলে ই-কমার্স ব্যবসা :

আমরা সাধারনত অনলাইনে ব্যবসা করাকে ই-কমার্স ব্যবসা বলে থাকি। আজ কাল আমরা অনলাইনের মাধ্যমে পন্য সেল বা পন্য কেনা-কাটা করে থাকি এটাই হচ্ছে ই-কমার্স ব্যবসা। বর্তমানে ই-কমার্স ব্যবসা বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। আপনিও ইচ্ছ করলে মোবাইলের মাধ্যমে ই-কমার্স ব্যবসা পরিচালনা করে অনলাইন থেকে ইনকাম করতে পারেন। মোবাইলে ব্যবসা করতে চাইলে আপনার কোন সপ থাকতে হবে না। ঘরে বসেই মোবাইলের মাধ্যমে ব্যবসা পরিচালনা করতে পারবেন। আপনার যদি কোন প্রোডাক্ট থেকে থাকে বা কিছু প্রোডাক্ট ক্রয় করে রাখলেন। সেই প্রোডাক্ট গুলোর ছবিসহ রিভিউ লেখে সোসাল মিডিয়া পেজ গুলোতে শেয়ার করতে হবে। আস্তে আস্তে আপনার প্রচার বাড়াতে হবে। এক সময় আপনার প্রোডাক্ট সেল জেনারেট হতে থাকবে। তবে ই-কমার্স ব্যবসা পরিচালনা করতে হলে আপানাকে মার্কেটিং সম্পর্কে জান শোনা থাকতে হবে। মার্কেটিং সম্পর্কে বুঝতে হবে এবং সোসাল মিডিয়াতে আপনার প্রচুর ফ্যান ফলোয়ার থাকতে হবে। তাহলে আপনি ই-কমার্স ব্যবসায় সাকছেছ হতে পারবেন।

৪. ফেসবুক পেজ :

ফেসবুক আমাদের যোগাযোগের একটি জনপ্রিয় মাধ্যম। ফেসবুকের নাম শুনেন নাই এমন মানুষ পাওয়া খুব কঠিন। ফেসবুকে আমরা বন্ধু বান্ধবের সাথে আড্ডা দিয়ে অযথা সময় নষ্ট করছি। কিন্তু আপনি কি জানেন এই ফেসবুক হতে পারে আপনার আয়ের উৎস। তাও আবার নিজের পকেটের মোবাইলের মাধ্যমে। মোবাইল দিয়ে ফেসবুক থেকে ইনকাম করতে চাইলে প্রথমে আপনাকে ফেসবুকে একটি আইডি খুলতে হবে। সেই আইডির অধীনে একটি ফেসবুক পেজ খুলতে হবে। পেজকে সুন্দর করে সাজাতে হবে। ফেসবুক পেজে লোগো সেট করতে হবে এবং ফেসবুক কভার ফটো সেট করতে হবে। এছাড়া এবাউট পেজে আপনার সকল তথ্য দিয়ে ফিলাপ করতে হবে। ফেসবুক পেজ কিভাবে তৈরি করবেন জানতে হলে এই লিংকে ক্লিক করুন। লিংকটি হলো – https://www.ictcorner.com/facebook-marketing/ এই লিংকে গিয়ে কিভাবে ফেসবুক পেজ তৈরি করবেন এবং কিভাবে ফেসবুক মার্কেটিং করবেন বিস্তারিত জানতে পারবেন। তাই মোবাইল দিয়ে ফেসবুক পেজ তৈরি করে পেজে আপনার প্রোডাক্টের ছবিসহ রিভিউ তৈরি করে পোস্ট করুন। নিয়মিত ফেসবুক পেজে পোস্ট করতে থাকুন এবং পেজে ফলোয়ার বাড়াতে থাকুন এক সময় সেল জেনারেট হওয়া শুরু হয়ে যাবে। এই ফেসবুক পেজ তৈরি করে মোবাইলের মাধ্যমে ইনকাম করতে পারেন।

৫. মোবাইলে ফটোগ্রাফী বিক্রি :

অনেকে শখের বসে মোবাইলে ছবি তুলে থাকেন। এক সময় ছবি তোলা নেশা হয়ে যায়। তাই আপনি যদি মোবাইলে ফটোগ্রাফী তুলতে পারদর্শী হয়ে থাকেন তাহলে আপনি ইনকাম করতে পারবেন। অনেকে এন্ড্রয়েড ফোন বা স্মার্টফোন ব্যবহার করে প্র্রয়োজনে বা শখের বসে বিভিন্ন ধরনের ছবি তুলে থাকেন। আপনি ফটোগ্রাফীর ছবি গুলো যদি আকর্ষনীয় মডেলে তুলতে পারেন বা মডেলিং ডিজাইনে রুপ দিতে পারেন। তাহলে এই ধরনে ফটোগ্রাফী বিক্রি করে মোবাইলে ইনকাম (Mobile Income) করতে পারবেন। হয়তো ভাবছেন আমার ছবি কে নিবে বা কোথায় বিক্রি করবো। আপনার প্রথম প্রশ্নের উত্তর হচ্ছে ছবি নেওয়ার বিভিন্ন মাধ্যম রয়েছে যেমন: ধরুন কারো একটি ওয়েবসাইট রয়েছে সেখানে বিভিন্ন ধরনের ফটোগ্রফ দরকার। অথবা কারো কোন কোম্পানী আছে মডেলিং ছবির প্রয়োজন হয়ে পড়ে। তখন তারা এই ধরনের ছবি বা ফটোগ্রাফী ক্রয় করে থাকে। দ্বিতীয় প্রশ্ন হচ্ছে কোথায় বিক্রি করবেন। ছবি বা ফটোগ্রাফী বিক্রি করার বিভিন্ন সাইট রয়েছ সে সাইট গুলোতে আপনার ফটোগ্রাফী বিক্রি করতে পারবেন। সাইট গুলো হচ্ছে- 1. Snapwire 2.Foap 3. Agora image 4. clashot 5. EyeEm ইত্যাদি। এই ওয়েবসাইট গুলোতে মোবাইলের মাধ্যমে ফটোগ্রাফী তুলে আপলোড করে বিক্রির মাধ্যমে ইনকাম করতে পারবেন।

পড়ুন :

কিভাবে ডাটা এন্ট্রি কাজ করে আয় করবেন

কিভাবে ফ্রি ব্লগসাইট তৈরি করবেন

শেষ কথা :

পরিশেষে কথা হচ্ছে অনলাইনে বিভিন্ন পদ্ধতিতে মোবাইলে ইনকাম (Mobile Income) করা যায়। তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য কিছু পদ্ধতি আপনাদের সামনে তুলে ধরার চেষ্টা করেছি। আপনি উপরের এই পদ্ধতি গুলো অনুসরন করে অনলাইন থেকে মোবাইলের মাধ্যমে আয় করতে পারেন। হয়তো ভাবছেন টাকা হতে পাবো কিভাবে। প্রতিটি সাইটে টাকা পাওয়ার পদ্ধতি ঐ সাইটে বর্ননা করা হয়েছে। আগে আপনি কাজ শুরু করুন। তারপর আস্তে আস্তে সেই সাইট সম্পর্কে জানার চেষ্টা করুন। সব কিছু জানতে পারবেন এবং সহজে টাকা হাতে পেয়ে যাবেন। সর্বশেষ কথা হচ্ছে অনলাইনে কাজ করতে হলে আপনাকে ধর্যশীল হতে হবে এবং অধ্যাবসায় চালিয়ে যেতে হবে। একদিন সফলকাম হবেন ইনশাল্লাহ। আর্টিকেলটি ভালো লেগে থাকলে বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করুন। আর কোন কিছু জানার ইচ্ছা বা পরামর্শ থাকলে কমেন্টস করুন।

Related posts

Leave a Comment