লোকাল এসইও (Local SEO ) কি এবং লোকাল এসইও টিপস সম্পর্কে জানুন

Local seo

ওয়েবসাইটে জন্য এস ই ও একটি ধারাবাহিক প্রক্রিয়া। প্রতি নিয়ত এস ই ও করতে হয়। এস ই ও সাধারনত দুই প্রকার। এক, অনপেজ এস ই ও, দুই, অফপেজ এস ই ও। এছাড়া আরেকটি এস ই ও হচ্ছে Local SEO । একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের জন্য লোকাল এস ই ও খু্বই গুরুত্বপূর্ন। কোন ব্যবসা কেন্দ্রিক ওয়েব সাইটকে সাধারন এস ই ও এর পাশাপাশি লোকাল এস ই ও করতে হয়। যা সাধারনত: গুগুল ম্যাপ কেন্দ্রিক হয়ে থাকে। গুগুল ম্যাপের মাধ্যমে কোন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে সাইটেশন করতে হয়। ফলে গুগুল ঐ প্রতিষ্ঠানকে গুগুল টপে দেখায়। আজ আমরা জানবো লোকাল এসইও সম্পর্কে। প্রশ্ন হচ্ছে লোকাল এসইও ( Local SEO ) কি এবং লোকাল এসইও টিপস্ সম্পর্কে জানুন।

লোকাল এসইও( Local SEO ) কি :

লোকাল এসইও (Local SEO ) হচ্ছে কোন নির্দিষ্ট এরিয়া বা এলাকা ভিত্তিক কাস্টমারকে কেন্দ্র করে যখন কোন ওয়েবসাইটকে সার্চ ইন্জিন অপটিমাইজেশন করা হয় তখন তাকে লোকাল এসইও বলা হয়ে থাকে। লোকাল এস ই ও শুধু কোনো স্থানীয় এস ই ও নয়। এটা ঢাকা শহর কেন্দ্রিক হতে পারে, বাংলাদেশ কেন্দ্রিক হতে পারে, আবার আমিরেকার নিউ ইয়ার্ক শহর কেন্দ্রিক হতে পারে। ধরুন আপনার ঢাকা শহরে একটি কাপড়ের দোকান আছে। নাম ”মাইকেল ফ্যাশান সপ্ ” তখন আপনি কিভাবে এসইও করবেন। তখন আপনাকে এস ই ও করতে হবে ঢাকা শহরের আশে পাশে ৫ কি: মি: বা ১০ কি: মি; দুরত্ব বজায় রেখে এস ই ও করতে হবে। যাতে এই এলাকার কাস্টমাররা আপনার দোকানে আসে। তখন আপনাকে সার্চ করতে হবে ”মাইকেল ফ্যাশান সপ্ ঢাকা” লিখে। এমনি ভাবে আপনার কোন ”মাইকেল কাস্টমার কেয়ার সেন্টার” আছে। বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলায় এই কাস্টমার কেয়ার সেন্টার রয়েছে। তখন আপনাকে কি করতে হবে। আপনাকে লিখতে হবে ”মাইকেল কাস্টমার কেয়ার সেন্টার বিডি ”। এটা কিভাবে করবেন ? আপনাকে ”মাইকেল ফ্যাশান সপ্ ঢাকা” এবং ”মাইকেল কাস্টমার কেয়ার সেন্টার বিডি” কিওয়ার্ড নিয়ে এস ই ও করতে হবে। মোট কথা লোকাল এস ই ও হচ্ছে নির্দিষ্ট অডিয়েন্সকে কেন্দ্র করে নির্দিষ্ট এরিয়া বা এলাকা ভিত্তিক কোন ওয়েবসাইটকে সার্চ ইন্জিন অটিমাইজেশন করে গুগুল টপে নিয়ে আসাই হচ্ছে লোকাল এস ই ও

লোকাল এসইও প্রকারভেদ :

লোকাল এসইও সাধরনত: দুই প্রকারের হয়ে থাকে। এক, আইপি নির্ভর, দুই, লোকেশন নির্ভর।

  • আইপি নির্ভর : আইপি নির্ভর হচ্ছে ধরুন, আপনি একজন ভালো আর্কিটেক সার্ভিস প্রোভাইডার। কেউ যদি গুগুলে আর্কিটেক সার্ভিস প্রোভাইডার লিখে সার্চ করে তখন গুগুল সার্চ ইন্জিন আপনাকে আইপি এড্রেসের উপর ভিত্তি করে ভালো আর্কিটেক সার্ভিস প্রোভাইডারদের ফলাফল প্রদর্শন করবে।
  • লোকেশন নির্ভর : লোকেশন নির্ভর হচ্ছে আপনি গুগলে সার্চ করলেন ”আর্কিটেক সার্ভিস প্রোভাইডার ঢাকা”। তখন গুগুল আপনাকে ঢাকার মধ্যে যে আর্কিটেক সার্ভিস প্রোভাইডার (Provider) রয়েছে তাদের ফলাফল প্রদর্শন করবে।

লোকাল এসইও টিপস্ :

আমরা জানি যে লোকাল এসইও ব্যবসার সাফল্য বা সমৃদ্ধির জন্য করা হয়ে থাকে। আর তা করা হয়ে থাকে গুগুল ম্যাপ কেন্দ্রিক। গুগুল ম্যাপে সাইটেশন করে আপনার বিজনেস নেম এড করতে হবে। গুগুল ম্যাপে মাই বিজনেস পেজ খুলতে হবে। তাকে প্রোপার ওয়েতে অপটিমাইজ করতে হবে। লোকাল এস ই ও কিছু গুরুত্বপূর্ন টিপস্ রয়েছে তা নিচে তুলে ধরা হলো।

১. লোকাল প্যাক :

Local Pack

গুগুলে আপনার ওয়েবসাইট লিখে সার্চ করলে এই রকম রেজাল্ট আসলে একে লোকাল পেক বা লোকাল এসইও পেক বলা হয়ে থাকে। এক সঙ্গে গুগুল ম্যাপ এবং তার মধ্যে আপনার ওয়েবসাইট নেম বা বিজনেস নেম সহ বিভিন্ন ফিচার দেখতে পাবেন।

২. ওয়ান বক্স রেজাল্ট :

one box result

গুগুলে আপনার ওয়েব সাইট লিখে সার্চ করলে ডান সাইটে গুগুল ম্যাপসহ আপনার ওয়েবসাইট নেম, এড্রেসসহ বিভিন্ন তথ্য আসলে তখন তাকে ওয়ান বক্স রেজাল্ট বলা হয়ে থাকে। এখানে আপনার নিজের ছবিও আসতে পারে।

৩. নলেজ গ্রাফ রেজাল্ট :

নলেজ গ্রাফ রেজাল্ট হচ্ছে গুগুলে আপনার ওয়েবসাইট লিখে সার্চ করলে আপনার ছবি বা গুগুল ম্যাপ আসবে। কিন্তু নিচে কোন এড্রেস বা ফোন নম্বার থাকবে না। তাকে নলেজ গ্রাফ রেজাল্ট বলা হয়ে থাকে।

৪. গুগুল ম্যাপ সাইটেশন :

গুগুল ম্যাপে বিজনেস নেম সাইটেশন লোকাল এস ই ও এর ক্ষেত্রে খুবই গুরুত্বপূর্ন। গুগুল ম্যাপে আপনার ওয়েবসাইটকে বা বিজনেসকে এড করতে চাইলে সাইটেশন করতে হবে। প্রশ্ন হচ্ছে সাইটেশন কি ? সাইটেশন হচ্ছে আপনার বিজনেস বা ওয়েবসাইট কোন জায়গায় তার স্থান গুগুল ম্যাপে নির্দিষ্ট করে দেয়া। যাতে গুগুল সহজে সিনাক্ত করতে পারে। সাইটেশনের কিছু প্রক্রিয়া রয়েছে। তা জানতে হলে এই আর্টিকেল ভালো ভাবে পড়তে থাকুন নিচে গেলে সাইটেশন সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন।

৫. স্কীমা ডাটা :

স্কীমা ডাটা এক প্রকার ট্যাগ। লোকাল এস ই ও ক্ষেত্রে স্কীমা ডাটা বা ট্যাগ খুবই একটি পাওয়ার ফুল ওয়ে। স্কীমা ডাটা বা ট্যাগ তিনটি ওয়েতে সেটাপ করতে হয়। স্কীমা ডাটা সেটাপের মাধ্যমে গুগুল জানতে পারে আপনার সাইট বা বিজনেস কি সম্পর্কে। গুগুল সঠিক ভাবে সিনাক্ত করতে পারলে আপনার সাইটকে ভালো একটা বেটার রেট দেয়। যার ভিত্তিতে আপনার বিজনেস দ্রুত র‌্যান্কে উপরে উঠবে এবং গুগুল টপে চলে আসবে। তাই স্কীমা ডাটা সেটাপ করা দরকার।

লোকাল এস ই ও (Local SEO ) করার পদ্ধতি সমূহ :

লোকাল এস ই ও করতে হলে সাধারন এস ই ও এর পাশাপশি লোকল এস ই ও করতে হবে। লোকাল এস ই ও করা হয় লোকাল বিজনেসকে কেন্দ্র করে। লোকাল এস ই ও করার কিছু পদ্ধতি রয়েছে তা নিচে তুলে ধরা হলো ।

১. কিওয়ার্ড রিসার্চ করা :

লোকাল এস ই ও ক্ষেত্রে কিওয়ার্ড রিসার্চ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ন বিষয়। লোকাল এস ই ও এর ক্ষেত্রে কিওয়ার্ড রিসার্চে কিছুটা ভিন্নতা আসবে। সাধারন ভাবে এস ই ও করার পাশাপাশি শুধু নির্দিষ্ট স্থানের নাম যুক্ত হবে। ধরুন আপনার দোকান ধানমন্ডিতে তাহলে শেষে ধানমন্ডি যুক্ত হবে। যেমন: Michal Fashion shop in Dhanmondi. এই কিওয়ার্ড নিয়ে অপটিমাইজ করতে হবে।

২. লোকাল ডোমেন :

আপনার ব্যবসা যদি লোকাল এরিয়া ভিত্তিক হয়ে তাকে তাহলে লোকাল ডোমেন ক্রয় করা উচিত। আপনার ব্যবাসা যদি শুধু ঢাকা কেন্দ্রিক হয় তাহলে আপনার বিজনেস ঢাকার মধ্যেই সীমাবদ্ধ। তাহলে আপনার ডোমেন কিনা উচিত www.example.com.bd । তাহলে সঠিক ভাবে এস ই ও করে সেল জেনারেট করা সহজ হবে।

৩. সঠিক টাইটেল ও ম্যাটা ডিসক্রেপশন :

টাইটেল ও ম্যাটা ডিসক্রেপসন একটি কনটেন্টের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ন ফ্যাক্টর। টাইটেল ও ম্যাটা ডিসক্রেপশনে ফোকাস কিওয়ার্ড থাকতে হবে। আপনি যে নির্দিষ্ট কিওয়ার্ড নিয়ে কনটেন্ট লিখবেন সেই কিওয়ার্ড যেন টাইটেলে ও ম্যাটা ডিসক্রেপশনে থাকে। এছাড়া আপনার কনটেন্টের মধ্যে ফোকাস কিওয়ার্ড বেশ কয়েকবার থাকতে হবে।

৪. নেম, এড্রেস ও ফোন নাম্বার অপটিমাইজ করা :

লোকাল এস ই ও ক্ষেত্রে গুগুল ম্যাপে আপনার বিজনেস নেম, এড্রেস ও ফোন নম্বার সঠিক ভাবে এড করতে হবে। যাতে কাস্টমাররা আপনাকে খোজে পায়। গুগুল চায় আপনার সঠিক নেম, এড্রেস ও ফোন নম্বার বা মোবাইল নাম্বার সবার জন্য উন্মুক্ত থাক।

৫. ইমেজ অপটিমাইজ করা :

ইমেজ আপনার ব্যবসার ক্ষেত্রে পরিচিতি বহন করে। আপনার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ইমেজ বা ছবি গুগুলে এড করতে হবে। শুধু এড করলেই হবে না তাকে সঠিক ভাবে অপটিমাইজ করতে হবে। ইমেজ টাইটেল, ইমেজ ক্যাপশন, ডিসক্রেপশন ইত্যাদি সঠিক ভাবে অন্তর্ভূক্ত করতে হবে।

৬. গুগুল ম্যাপে বিজনেস সাইট অন্তর্ভূক্ত করা :

গুগুল ম্যাপে বিজনেস সাইট অন্তর্ভূক্ত করতে হবে। আপনার বিজনেস সাইটের নাম গুগুল ম্যাপের মধ্যে যাতে ইনকুলুট হয় তার জন্য সঠিক ভাবে এস ই ও করতে হবে। গুগুলের নিয়ম মেনে আপনাকে আপনার সাইট নেম গুগুল ম্যাপে অন্তর্ভূক্ত করতে হবে।

৭. গুগুল মাই বিজনেস পেজ তৈরি করা :

লোকাল এস ই ও ক্ষেত্রে গুগুল মাই বিজনেস পেজ ক্রিয়েট করা অত্যন্ত জরুরী বিষয়। আপনাকে গুগুলে রেজিষ্ট্রেশন করে গুগুল মাই বিজনেস পেজ ক্রেয়েট করতে হবে। আপনার সকল তথ্য দিয়ে এই পেজকে অপটিমাইজ করতে হবে। লোকাল বিজনেসের ক্ষেত্রে গুগুল মাই বিজনেস পেজ গুরত্বপূর্ন ভূমিকা পালন করে থাকে।

৮. পাবলিক সাইটেশন করা :

আপনার বিজনেস পেজকে গুগুল ম্যাপে অন্তর্ভূক্ত করতে হলে সাইটেশন করতে হবে। প্রশ্ন হচ্ছে সাইটেশন কি ? সাইটেশন হচ্ছে গুগুল ম্যাপে কোন নির্দিষ্ট জায়গায় আপনার ব্যবসার নাম এড করার প্রোপার ওয়ে। যাতে সবাই আপনার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে চিনতে পারে। গুগুল ম্যাপে গিয়ে কোন নির্দিষ্ট জায়গায় আপনার মাউসের কার্চর রেখে রাইট বাটনে ক্লিক করুন। দেখবে একটি ড্রপ ডাউন লিস্ট আসছে। সেখানে এড মিছিং পেলেসে ক্লিক করুন। তাহলে একটি ইন্টরফেস দেখতে পাবেন। তাতে আপনার বিসনেস নেম, ক্যাটাগরি, লোকেশন ইত্যাদি তথ্য দিয়ে সঠিক ভাবে পূরুন করে পাবলিশ করুন। গুগুলের বিশ্বস্ততা হলে আপনার সাইট লাইভ করবে। আর যদি বিশ্বস্ততা না হয় তাহলে জনগনের উপর ছেড়ে দিবে। জনগন রিভিউ করলে গুগুল আপনাকে একটি কোড সম্বলিত চিঠি পাঠাবে। সেই কোড বসে সাবমিট করলে আপনার সাইট ভেরিফাই হবে এবং সাইট লাইভ করবে। এটাই হচ্ছে সাইটেশন করা। আরও একটু গভীরে গেলে বলতে হয় গুগুল মাই বিজনেস একাউন্ট খুলতে হলে গুগুল ১৪ দিন পর একটি কোড সম্বলিত চিঠি পাঠায়। সেই কোড বসিয়ে সাবমিট করলে গুগুল সাইটকে ফেরিভাইড করে। এই ভেরিফাইড করাই হচ্ছে গুগুল সাইটেশন করা।

৯. লোকাল বিজনেস ব্যাকলিংক তৈরি করা :

ব্যাকলিংক প্রতিটি সাইটের র‌্যান্কিয়ে জন্য আবশ্যক। তেমনি লোকাল বিজনেসের জন্য লোকাল সাইট গুলোতে ব্যাকলিংক দিতে হবে। তাতে সাইটের র‌্যান্ক বাড়বে এবং ভিজিটর বৃদ্ধি হবে। ব্যবসার ক্ষেত্রে সেল জেনারেট (Generate) বেশি হবে।

পড়ুন :

কিভাবে টেকনিক্যাল এস ই ও করবেন

কিভাবে অনপেজ এস ই ও করবেন

১০. ফেসবুক মার্কেটিং :

ফেসবুক মার্কেটিং লোকাল বিজনেসের একটি গুরুত্বপূর্ন পার্ট। ফেসবুকের মাধ্যমে লোকাল অডিয়েন্সকে টার্গেট করে বিজনেস করা যায়। তার জন্য আপনাকে ফেসবুক পেজ ক্রেয়েট করতে হবে। এই ফেসবুক পেজের মাধ্যমে টার্গেটেড কাস্টমারদের সাথে সেল জেনারেট করে লোকাল বিজনেস করা যায়। ফেসবুক সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে চাইলে নিচের লিংকে ক্লিক করে জানতে পারেন। লিংকটি হলো – https://www.ictcorner.com/facebook-marketing/

পরিশেষে বলা যায় যে কোন গন্ডির ভিতরে না থেকে সমস্ত দেশ বা বিশ্বের জন্য যে এস ই ও করা হয় তাকে গ্লোবাল বা ইন্টারন্যাশনাল এস ই ও বলা হয়ে থাকে। আর কোন নির্দিষ্ট এরিয়া ভিত্তিক যে এস ই ও করা হয় তাকে লোকাল এসইও ( Local SEO ) বলা হয়ে তাকে। বর্তমানে গ্লোবাল এস ই ও এর পাশাপাশি লোকাল এস ই ও দ্রুত এগিয়ে চলছে। অনলাইনে লোকাল এসইও এর বিভিন্ন কাজ পাওয়া যায়। আপনি ইচ্ছা করলে লোকাল এস ই ও শিখে প্রচুর ইনকাম করতে পারেন। নতুবা নিজের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান দাঁড় করে সেখানে ভিজিটর বৃদ্ধি করে সেল জেনারেট করেও আয় করতে পারেন।

Related posts

Leave a Comment