ইমেইল মার্কেটিং (Email Marketing) কি এবং কিভাবে ইমেইল মার্কেটিং করে আয় করা যায়

Email Marketing

ইমেইল মার্কেটিং (Email Marketing) হচ্ছে ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের একটি পার্ট বা অংশ। ইমেইল মার্কেটিং করতে হলে আপনাকে হাজার হাজার ইমেইল কালেক্ট করতে হবে। সেই ইমেইলের মাধ্যমে আপনার ব্যবসার প্রোডাক্ট সম্পর্কে প্রচার করে সেল জেনারেট করতে হবে। ইমেইল মার্কেটিং দুই ভাবে করা যায়। এক, ফ্রি ভাবে মার্কেটিং করা যায়। দুই, পেইড ভাবে মার্কেটিং করা যায়। আমরা জানবো কিভাবে ফ্রিতে ইমেইল মার্কেটিং করা যায়। ইমেইল মার্কেটিং করতে হলে আপনাকে ইমেইল মার্কেটিংয়ের টেকনিক গুলো সম্পর্কে জানতে হবে। কিভাবে ইমেইল কালেক্ট করা যায়। কিভাবে হাজার হাজার ইমেইল এক সঙ্গে পাঠানো যায়। কিভাবে আকর্ষনীয় অফার লিটার লেখে ইমেইল প্রমোট করা যায়। আজকে আমরা জানবো ইমেইল মার্কেটিং কি এবং কিভাবে ইমেইল মার্কেটিং করে আয় করা যায়।

ইমেইল মার্কেটিং (Email Marketing) কি :

ইমেইল মার্কেটিং সম্পর্কে জানার আগে আপনাকে জানতে হবে মার্কেটিং কি ? মার্কেটিং হচ্ছে কোন প্রোডাক্টের প্রচার বা প্রচারনা করাকে মার্কেটিং বলে। কোন প্রোডাক্টের বা পন্যের গুনাগুন ক্রেতার সামনে তুলে ধরাই হচ্ছে মার্কেটিং করা। আর এই কাজটি যখন ইমেইলের মাধ্যমে সম্পূন্ন করা হয় তখন তাকে ইমেইল মার্কেটিং বলে। অর্থাৎ ইমেইলের মাধ্যমে যখন কোন প্রোডাক্ট বা পন্যের গুনাগুন সম্পর্কে বর্ননা করে ক্রেতার কাছে পাঠানো হয় তখন তাকে ইমেইল মার্কেটিং বলে। এই কাজ গুলো করতে হয় বিভিন্ন সফটওয়ারের মাধ্যমে। সফটওয়ারের মাধ্যমে এক সঙ্গে হাজার হাজার ক্রেতার কাছে ইমেইল পাঠানো যায়। সফটওয়ারের মাধ্যমে হাজার হাজার ক্রেতার কাছে ইমেইল করে প্রোডাক্ট বা পন্য সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরে মার্কেটিং করাই হচ্ছে ইমেইল মার্কেটিং করা।

ইমেইল মার্কেটিংয়ের জন্য প্রয়োজনীয় সফটওয়ার :

ইমেইল মার্কেটিং করতে হলে সফটওয়ারের প্রয়োজন হয়। প্রফেশনালী ইমেইল মর্কেটিং করতে হলে আপনাকে সফটওয়ারের ব্যবহার জানতে হবে। সফটওয়ারের ব্যবহার ছাড়া এক সঙ্গে হাজার হাজার ইমেইল পাঠানো সম্ভব নয়। তাই কিছু জনপ্রিয় সফটওয়ার নিচে তুলে ধরলাম। এ গুলো ব্যবহার করে ইমেইল মার্কেটিং করতে পারেন।

  1. Mailchip
  2. Sendin Blue
  3. Drip
  4. Constant Contact
  5. Convert kit
  6. Get Response
  7. A Weber
  8. GmassMaster
  9. Feed Burner
  10. Active Campaign

কিভাবে ইমেইল মার্কেটিং (Email Marketing) করা যায় :

ইমেইল মার্কেটিং করতে হলে প্রথমে প্রয়োজন আপনার ইমেইল কালেক্ট করে ইমেইল লিস্ট তৈরি করা। ইমেইল কালেক্ট করার বিভিন্ন সফটওয়ার পাওয়া যায়। সে গুলোর মাধ্যমে আপনাকে ইমেইল সংগ্রহ করতে হবে। আপনি চাইলে নিম্ন লিখিত পদ্ধতি গুলো অনুসরন করে ইমেইল কালেক্ট বা সংগ্রহ করতে পারেন।

১. ইমেইল ক্রয় করা :

ইমেইল কালেক্ট করার সহজ উপায় হলো ইমেইল ক্রয় করা। বিভিন্ন সফটওয়ার কোম্পানী রয়েছে ইমেইল বিক্রি করে থাকে। তাদের থেকে ইমেইল ক্রয় করে লিস্ট তৈরি করুন। এই ইমেইল গুলোর মাধ্যমে আপনার প্রোডাক্ট সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য বর্ননা দিয়ে মার্কেটিং করে ব্যবসা পরিচালনা করতে পারেন।

২. নিজে ইমেইল কালেক্ট করা :

ইমেইল কালেক্ট করার উত্তম উপায় হলো নিজে নিজেই ইমেইল কালেক্ট করা। ইমেইল কালেক্ট করার বিভিন্ন অনলাইন টুলস রয়েছে সেগুলোর মাধ্যমে নিজেই ইমেইল কালেক্ট করতে পারেন। কিছু জনপ্রিয় টুলস হচ্ছে – Bloom, Optin Monster, Sumo Me, Sleek note ইত্যাদি। এ গুলো টুলস ব্যবহার করে ইমেইল কালেক্ট করতে পারেন।

৩. ব্লগ বা ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ইমেইল কালেক্ট করা :

আপনার যদি ভালো একটি ব্লগসাইট বা ওয়েবসাইট থেকে থাকে তার মাধ্যমে ইমেইল কালেক্ট করতে পারেন। আপনার ব্লগসাইট বা ওয়েবসাইটে সাবস্ক্রাইব বাটন সেট করে ভিজিটরদের বিভিন্ন অফার প্রমোট করে ইমেইল কালেক্ট করতে পারেন। তবে এর জন্য আপনার ওয়েবসাইটে প্রচুর ভিজিটর থাকতে হবে।

আকর্ষনীয় অফার প্রমোট করা :

ইমেইল সংগ্রহের পর ইমেইল সেন্ট করার পালা। ইমেইল সেন্ট করার আগে আপনাকে আপনার পন্য সম্পর্কে আকর্ষনীয় অফার লিটার তৈরি করতে হবে। আপনার পন্য সম্পর্কে আকর্ষনী ও লোভনীয় অফার প্রমোট করতে হবে। যাতে ক্রেতাগন সহজে আকৃষ্ট হয় এবং পন্য ক্রয় করতে আগ্রহবোধ করে। তবেই ইমেইল পাঠানোর সার্থকতা সফল হবে। আকর্ষনীয় অফার প্রমোট করে ইমেইল পাঠাতে পারলে আপনার প্রোডাক্ট সেল হওয়ার সম্ভবনা বেশি থাকে। মনে রাখবেন ইমেইল এমন ভাবে লিখতে হবে যাতে ক্রেতা আকৃষ্ট হয় তবেই ক্রেতা আপনার ল্যান্ডিং পেজে আসবে। ল্যান্ডিং পেজে কাস্টমার বাটন সেট করতে হবে। যাতে ক্রেতা সহজে আপনার পন্য ক্রয় করতে পারে। তাই ইমেইলের কন্টেন্টের প্রতি গুরুত্ব দিতে হবে এবং আকর্ষনীয় অফার লিটার লেখে ইমেইল পাঠাতে হবে।

কিভাবে ইমেইল পাঠাবেন :

ইমেইল কালেক্ট করার পর ইমেইল লিটার লিখতে হবে। তারপর ইমেইল সেন্টের পালা। প্রশ্ন হচ্ছে কিভাবে ইমেইল পাঠাবেন। আমরা কোন বন্ধু-বান্ধব, আত্মীয় স্বজনের কাছে লিটার লিখে এক এক করে ইমেইল পাঠিয়ে থাকি। কিন্তু ব্যবসা পরিচালনা করার ক্ষেত্রে এক এক করে কতক্ষনে হাজার হাজার ইমেইল পাঠাবেন ? প্রতিদিন আপনি ১৫০০/ ২০০০ ইমেইল পাঠাতে পারবেন। এত গুলো ইমেইল এক এক করে পাঠানো কি আদোও সম্ভব ? এর জন্য আপনাকে কি করতে হবে ? আপনাকে সফটওয়ারের সাহায্য নিতে হবে। অনলাইনে অনেক সফটওয়ার রয়েছে। সে গুলোর সাহায্যে এক সঙ্গে হাজার হাজার ইমেইল পাঠাতে পারবেন। আমর পরামর্শ আপনি GmassMaster সফটওয়ার ব্যবহার করে এক সঙ্গে অনেক গুলো ইমেইল পাঠাতে পারেন।

পড়ুন :

কিভাবে মোবাইলে ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করবেন

কিভাবে ইমেইল তৈরি করা যায়

ইমেইল মার্কেটিং (Email Marketing) করে আয় করার উপায় :

কোনো ব্যবসা পরিচালনা করার ক্ষেত্রে ইমেইল মার্কেটিং একটি উৎকৃষ্ট পন্থা। যার মাধ্যমে সহজে মার্কেটিং করে ব্যবসার প্রোডাক্ট সেল জেনারেট করা যায়। ইমেইলের মাধ্যমে সহজে এবং অল্প খরচে পন্য বিক্রয় করে ব্যবসা পরিচালনা করতে পারবেন। আসুন জেনে নেই ইমেইলের মাধ্যমে কি কি উপায়ে আয় করা যায়।

১. এ্যফিলিয়েট মার্কেটিং করে :

এ্যফিলিয়েট মার্কেটিং হচ্ছে কোন কোম্পানী পন্য বিক্রি করে দেওয়ার বিনিময়ে যে কমিশন পাওয়া যায় তাকে এ্যফিলিয়েট মার্কেটিং বলে। এ্যফিলিয়েট মার্কেটিং করতে হলে এ্যফিলিয়েট সাইট গুলোতে রেজিষ্ট্রেশন করে প্রোডাক্ট লিংক সংগ্রহ করে প্রমোট করতে হয়। প্রোডাক্টের বর্ননা দিয়ে এ্যফিলিয়েট লিংক কাস্টমারের কাছে ইমেইলের মাধ্যমে পাঠিয়ে সেল জেনারেট করে আয় করতে পারেন।

২. ই-কমার্স প্রোডাক্ট বিক্রি করে :

বর্তমানে ই-কমার্স ব্যবসা বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। এখন আমরা অনলাইনে কেনা কাটা করতে স্বাচ্ছন্দ বোধ করে থাকি। ঘরে বসে অনলাইনের মাধ্যমে পন্য ক্রয় করতে চাই। তাই ইমেইলের মাধ্যমে আপনার ই-কমার্স পোডাক্ট সম্পর্কে কাস্টমারের কাছে তথ্য পাঠাতে পারেন। আপনার প্রোডাক্ট বা পন্য ভালো লেগে থাকেলে কাস্টমার তা ক্রয় করতে পারে। তাই ইমেইলের মাধ্যমে আপনার ই-কমার্স প্রোডাক্ট বিক্রি করে আয় করতে পারেন।

৩. ভিডিও বা ই-বুক বিক্রি করে :

আপনি কোনো বিষয়ে ভিডিও তৈরি করে ইমেইলের মাধ্যমে কাস্টমারের কাছে পাঠিয়ে সেল জেনারেট করে আয় করতে পারেন। সেটা হতে পারে কোন ই-বুক বা কোন পন্য। কোন ই-বুক বা পন্য সম্পর্কে ভিডিও তৈরি করে ইমেইলের মাধ্যমে কাস্টমারের কাছে পাঠাতে পারেন। পছন্দ হলে তা ক্রয় করতে পারে। এ ভাবে ভিডিও তৈরি করে ইমেইলের মাধ্যমে কাস্টমারের কাছে পাঠিয়ে পন্য বিক্রি করে আয় করতে পারেন।

৪. সার্ভিস বা সেবা অফার করে :

আপনি যদি কোনো সার্ভিস বা সেবা প্রদান করে থাকেন তা ইমেইলের মাধ্যমে আপনার ক্রেতাকে জানাতে পারেন। আপনার সার্ভিস বা সেবা ক্রেতার পছন্দ হলে তা ক্রয় করতে পারে। ধরুন, আপনি অনলাইনে ডোমেন হোস্টিং বিক্রি করে থাকেন। তাহলে তার সুবিধা সম্পর্কে আপনার কাস্টমারদের ইমেইলের মাধ্যমে জানাতে পারেন। পছন্দ হলে তারা তা ক্রয় করতে পারে। এভাবে আপনার সার্ভিস বা সেবা বিক্রি করে আয় করতে পারেন।

. টিউটরিয়াল বিক্রি করে :

আপনি কোনো বিষয়ে টিউটরিয়াল তৈরি করে ইমেলের মাধ্যমে বিক্রি করে আয় করতে পারেন। ইমেইলের মাধ্যমে আপনার টিউটরিয়াল সম্পর্কে কাস্টমারকে বিস্তরিত জানতে পারেন। ধরুন আপনি একজন ওয়েব ডিভলোপার বা এস ই ও সম্পর্কে ভালো কাজ জানা আছে। তাহলে এ বিষয়ে আপনি টিউটরিয়াল তৈরি করতে পারেন। আপনার টিউটরিয়ালের সুবিধা সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত বর্ননা দিয়ে ইমেইলের মাধ্যমে কাস্টমারদের জানাতে পারেন। আপনার টিউটরিয়াল কাউকে ভালো লেগে থাকলে তা ক্রয় করতে পারে। এভাবে ইমেইলের মাধ্যমে টিউটরিয়াল গুলো বিক্রি করে সেল জেনারেট করে আয় করতে পারেন।

পড়ুন :

কিভাবে ডিজিটাল মার্কেটিং করবেন

কিভাবে ফেসবুক মার্কেটিং করবেন

পরিশেষে কথা হচ্ছে ইমেইল মার্কেটিং (Email Marketing) একটি সহজ ও সময় সাশ্রয়ী মার্কেটিং পদ্ধতি। ঘরে বসে সহজে লোভনীয় অফার প্রোমট করে ক্রেতাকে আকৃষ্ট করে প্রোডাক্ট বিক্রি করে ব্যবসা পরিচালনা করা যায়। ইমেইল মার্কেটিংয়ের তিনটি উল্লেখযোগ্য উপায় হচ্ছে প্রথমত: ইমেইল কালেক্ট করা, দ্বিতীয়ত: লোভনীয় বা আকর্ষনীয় অফার লেটার তৈরি করা, তৃতীয়ত : সঠিক উপায়ে ইমেইল সেন্ট করা। উপরোক্ত কাজ গুলো সঠিক ভাবে করতে পারলে আপনি ইমেইলের মাধ্যমে ব্যবসা পরিচালনা করে সফলতা অর্জন করতে পারবেন। তবে আপনাকে সফটওয়ারের সঠিক ব্যবহার জানতে হবে তবেই সফলতা বয়ে আনা সম্ভব।

Related posts

2 Thoughts to “ইমেইল মার্কেটিং (Email Marketing) কি এবং কিভাবে ইমেইল মার্কেটিং করে আয় করা যায়”

  1. অনেক ধন্যবাদ এত সুন্দর করে উপস্থাপনা করার জন্য। আপনার ব্লগটিতে এরম আর উৎকৃষ্ট মানের পোস্ট পাব এই আশা করলাম।

Leave a Comment