“সিপিএ মার্কেটিং সম্পর্কে যাদুকরি ৫টি ‘CPA Tips’ সিপিএ টিপস”

CPA Tips

সিপিএ মার্কেটিং দারুন জনপ্রিয় মার্কেটিং প্লেস। সিপিএ মার্কেটিং নতুন প্রজন্ম থেকে শুরু করে সবার নিকট একটি গ্রহনযোগ্য ও সহজ লভ্য মার্কেটিং। এই মার্কেটিং করে সহজে ইনকাম করা যায়। তাই সবাই এই মার্কেটিংয়ের প্রতি দুর্বল। এই মার্কেটিংয়ের অফারের কথা শুনলেই লোফে নেওয়ার চেষ্টা করে। সিপিএ মার্কেটিং হচ্ছে Cost Per Action. প্রতি এ্যাকশন ফুলফিল করতে পারলেই ইনকাম করতে পারবেন। এখানে প্রতি এ্যাকশনে 1 ডলার থেকে 4 ডলার পর্যন্ত পাওয়া যায়। সিপিএ মার্কেটিং অন্যান্য মার্কেটিংয়ের তুলনায় সহজ। আপনার যদি একটি ব্লগসাইট থাকে এবং প্রচুর ভিজিটর থাকে তাহলে সহজে এ্যাকশন ফুলফিল করে ইনকাম করতে পারবেন। আজকে আমি আপনাদের সামনে সিপিএ মার্কেটিংয়ের যাদুকরি কিছু টিপস ‘CPA Tips’ সম্পর্কে তুলে ধরার চেষ্টা করবো।

সিপিএ মার্কেটিং টিপস ‘CPA Tips’ :

সিপিএ মার্কেটিং বিভিন্ন ভাবে করা যায়। নিজের ব্লগসাইটের মাধ্যমে, বিভিন্ন সোসাল সাইটের মাধ্যমে, ইউটিউব চ্যানেলের মাধ্যমে। সিপিএ মার্কেটিংয়ে ছোট ছোট কাজ করে ইনকাম করা যায়। এখানে জিপ সাবমিট, ইমেল সাবমিট, সাইট রেজিষ্ট্রেশন, সাইট ডাউনলোড ইত্যাদি ধরনের কাজ করতে হয়। সিপিএ মার্কেটিংয়ের ক্ষেত্রে যে যাদুকরি টিপস গুলো ফলো করলে সহজে ইনকাম করতে পারবেন তা নিচের তুলে ধরা হলো।

1. নেটওয়ার্ক সিলেক্ট করা :

সিপিএ মার্কেটিং করতে হলে প্রথমে নেটওয়ার্ক সিলেক্ট করতে হবে। নেটওয়ার্ক সিলেক্টের ক্ষেত্রে সবাধানতা অবলম্বন করতে হবে। সব নেটওয়ার্ক কিন্তু ডলার পেইড করে না। অনেক ভুয়া নেটওয়ার্ক সাইট রয়েছে যারা প্রলোভন দিয়ে কাজ করে নিয়ে পরে পেইড করে না। তাই আপনাকে সঠিক নেটওয়ার্ক সিলেক্ট করতে হবে। যে সব নেটওয়ার্ক পেইড করে সে গুলো আপনাদের সামনে তুলে ধরার চেষ্টা করছি। CPA Grip, CPA Leads, CPA AdworkMedia ইত্যাদি। নতুনদের জন্য প্রথমে এই তিনটি সাইটের মধ্যে থেকে যে কোন একটি সাইট নিয়ে কাজ শুরু করুন। তারপর আস্তে আস্তে বড় সাইট গুলোতে যেতে পারবেন। আমার সাজেস্ট হলো প্রথমে সিপিএ গ্রিপ নিয়ে শুরু করুন তারপর অন্য সাইটে যাবেন। তাতে আপনার কাজের সুবিধা হবে এবং কাজের গতি বাড়বে।

2. ল্যান্ডিং পেজ সিলেক্ট করা :

সিপিএ মার্কেটিংয়ের ক্ষেত্রে ল্যান্ডিং পেজ বড় ফ্যাক্টর। ল্যান্ডিং পেজ হচ্ছে আপনি যেখানে কাজ গুলো উপস্থাপন করবেন। ল্যান্ডিং পেজ বিভিন্ন সাইটে বিভিন্ন ধরনের পাবেন। তবে কিছুদিন পর পেইড করতে বলবে। পেইড ছাড়া আপনাকে কাজ করতে দিবে না। সহজে এবং ফ্রি ভাবে ল্যান্ডিং পেজে কাজ করতে চাইলে আপনি ব্লগার ডট কম সাইট বেছে নিতে পারেন। ব্লগার ডট কমে ফ্রি সাইট তৈরি করে আপনি অনায়াসে আপনার অফার গুলো উপস্থাপন করে কাজ করতে পারবেন। ল্যান্ডিং পেজে আপনার অফার সঠিক ভাবে উপস্থাপন করে তার লিংক সোসাল মিডিয়াতে প্রচার করুন। তাহলে আপনার অফারকৃত লিংক রিজেক্ট বা বাতিল হবে না।

3. কান্ট্রি সিলেক্ট করা :

সিপিএ মার্কেটিংয়ের ক্ষেত্রে কান্ট্রিও একটি গুরুত্বপূর্ন বিষয়। কান্ট্রি যদি সঠিক ভাবে সিলেক্ট না করতে পারেন তাহলে কান্খিত ফলাফল আনতে পারবেন না এবং ইনকামও ভালো হবে না। তাই সঠিক কান্ট্রি সিলেক্ট করতে হবে। আপনি বাংলাদেশ বা ভারতের মতো দেশ নিয়ে কাজ করলে ভালো কিছু করতে পারবেন না। আপনাকে ওয়েষ্টার্ন কান্ট্রি নিয়ে কাজ করতে হবে। তাহলে ভালো ইনকাম করতে পারবেন। বৃটেন, আমেরিকা, কানাডা ইত্যাদি দেশ নিয়ে কাজ করতে হবে। বিশেষ করে আমেরিকার অফার নিয়ে কাজ করার চেষ্টা করবেন। আমেরিকার গ্রুপ গুলোতে জয়েন্ট হয়ে তাদের সাথে বন্ধুত্ব গড়ে তুলার চেষ্টা করবেন। তাদের সাথে ফেন্ডসিপ করবেন। তাহলে সিপিএতে বেশি সফলকাম হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

4. অফার সিলেক্ট করা :

সিপিএ তে অফার সিলেক্ট করা হলো আসল বিষয়। আপনাকে নির্দিষ্ট একটি টপিক সিলেক্ট করতে হবে। যেমন, হেলথ এন্ড ফিটনেস, টিকনোলজি, গেমস ইত্যাদি ধরনের যে কোন একটি নিশ সিলেক্ট করবেন। ধরুন আপনি গেমস বিষয়ক অফার সিলেক্ট করলেন। গেমস বিষয় আপনার পছন্দ। তখন আপনি গেমস বিষয়ক অফারের লিংক নিয়ে বিভিন্ন সাইট গুলোতে প্রোমোট করতে হবে। এছাড়া গিফট কার্ড অফার নিয়েও কাজ করতে পারবেন। তবে সোসাল মিডিয়াতে সরাসরি লিংক প্রোমোট করলে অনেক সময় আপনার লিংক রিজেক্ট বা বাতিল করে দিতে পারে। তাই আপনার অফারকৃত টপিক নিয়ে আগে আপনার ল্যান্ডিং পেজে সঠিক ভাবে উপস্থাপন করুন। তারপর আপনার ল্যান্ডিংপেজের লিংক যে কোন সোসাল মিডিয়াতে প্রমোট করুন কোনো সমস্যা হবে না।

5. পেইড বা ফ্রি অফার সিলেক্ট করা :

সিপিএ অফার প্রমোটের ক্ষেত্রে আপনি পেইড অফার প্রমোট করতে পারেন। আবার ফ্রি অফারও প্রমোটও করতে পারেন। পেইড অফারের ক্ষেত্রে আপনাকে ডলার পে করতে হবে। আপনার যদি মাষ্টার কার্ড বা পেইনিয়র কার্ড থাকে তাহলে পেইড অফারে কাজ করতে পারবেন। আর যদি মাষ্টার কার্ড না থাকে তাহলে পারবেন না। আমি বলবো নতুনদের জন্য প্রথমে পেইড অফার প্রমোট না করাই ভালো। প্রথমে ফ্রি অফার গুলো প্রমোট করে ইনকাম শুরু করুন এবং কাজের দক্ষতা বৃদ্ধি করুন। তারপর পেইড অফার প্রমোট করবেন। অবশ্য পেইড অফারের কাজের সুবিধা বেশি এবং ইনকামও বেশি হয়। আগে ফ্রি দিয়ে শুরু করুন তারপর পেইড অফার প্রমোট করবেন।

পড়ুন :

সিপিএ মার্কেটিং সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে হলে ক্লিক করুন

মোবাইলে ইনকাম করার সহজ টিপস

শেষ কথা :

সিপিএ মার্কেটিংয়ে এই ৫টি যাদুকরি ’CPA Tips’ সিপিএ টিপস ফলো করলে আশা করি সফলকাম হবেন। সিপিএ মার্কেটিং কাজ সহজ বটে তবে ধর্য্য থাকতে হবে। ধর্য্য ছাড়া সফলতা বয়ে আনতে পারবেন না। সিপিএ মার্কেটিংয়ের মূল টার্গেট হলো ভিজিটর। আপনার সাইটে প্রচুর ভিজিটর থাকতে হবে। ভিজিটর হলো সিপিএ মার্কেটিংয়ের প্রান। সিপিএতে সফল হতে হলে সোসাল মিডিয়াতে আপনার লিংক বেশি বেশি প্রমোট করতে হবে। ফেসবুক, টুইটার, লিংকদিন, পিন্টারিস্ট, রেডিট, ইউটিউব বিভিন্ন সোসাল মিডিয়াতে সিপিএ অফারের লিংক প্রমোট করতে হবে। ট্রাফিক বা ভিজিটরদের দ্বারা আপনার অফারকৃত লিংকের কাজ ফুলফিল করতে হবে। তবেই আপনার ইনকাম হতে থাকবে। মনে রাখবেন যত প্রচার হবে ততো ইনকামের সম্ভবনা বেড়ে যাবে।

Related posts

2 Thoughts to ““সিপিএ মার্কেটিং সম্পর্কে যাদুকরি ৫টি ‘CPA Tips’ সিপিএ টিপস””

  1. অসাধারণ। এমন একট তথ্যবহুল আর্টিকেলের জন ধন্যবাদ।

  2. Md Morshedul Arefin

    Awesome Post. Thanks for This Post

Leave a Comment