Bookmark (বুকমার্ক) কি এবং কিভাবে বুকমার্ক করা যায় বিস্তারিত

Bookmark

অনলাইনে বুকমার্ক (Bookmark) একটি গুরুত্বপূর্ন বিষয়।কোন সাইট, পেজ বা কিওয়ার্ডকে র্যাক করতে চাইলে বুকমার্ক অপরিহার্য। বুকমার্ক হচ্ছে ব্যাকলিংকের পার্ট। বুকমার্কের মাধ্যমে দ্রুততম সময়ে কোন সাইট বা পেজ বা প্রোডাক্ট রিভিউ বা টাইটেলকে বিভিন্ন ব্রাউজারের কাছে পৌঁছে দেয়া সম্ভব হয়।বিভিন্ন সোসাল বুকমার্ক সাইট গুলোর মাধ্যমে আপনি বুকমার্ক করে ব্যাকলিংক দিতে পারবেন। ব্যাকলিংক তৈরিতে সোসাল বুকমার্ক একটি কার্যকরি পন্থা। যা আপনার সাইটকে র‌্যান্ক বা ভিজিটর পেতে গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা পালন করে থাকে। আজকে আমরা বুকমার্ক কিভাবে করা যায় সে বিষয়ে আলোচনা করবো। প্রশ্ন হচ্ছে (Bookmark) বুকমার্ক কি এবং কিভাবে বুকমার্ক করা যায়।

বুকমার্ক (Bookmark) কি :

বুকমার্ক হচ্ছে বই পড়ার সময় পড়তে পড়তে যে জায়গায় পড়া শেষ হলো সে স্থানে একটি কাগজের টুকরা বা চিহ্ন দেওয়া, যাতে পরে সহজে খুঁজে পাওয়া যায়। এটাই হচ্ছে বুকমার্ক করা। আর অনলাইনে বুকমার্ক হচ্ছে কোন ওয়েবসাইট বা পেজের লিংক বা প্রোডাক্ট রিভিউয়ের লিংক ব্রাউজারে প্রমোট করা, যাতে ব্রাউজারে সহজে খুজে পাওয়া যায়। এটাই হচ্ছে বুকমার্ক করা। বিস্তার র্অথে বুকমার্ক হচ্ছে অনলাইনে বিভিন্ন ব্রাউজারের মাধ্যমে কোন ওয়েবসাইট লিংক, টাইটেল, ইমেজ, প্রোডাক্ট রিভিউ লিংক বা টপিককে ইউজারদের নিকট পৌঁছে দেওয়া।ব্রাউজার গুলো হলো গুগুল, ইয়াহু, বিং, ইয়ানডেক্স, বাইডু, আসক প্রভৃতি ব্রাউজার সাইট রয়েছে। এই সাইট গুলোর নিকট বিভিন্ন বুকমার্ক সাইট গুলোর মাধ্যমে প্রমোট করে পৌঁছে দেওয়াই হচ্ছে বুকমার্ক করা। এককথায় বুকমার্ক সাইট গুলোর মাধ্যমে কোন বিষয় বা টপিককে প্রমোট করাই হচ্ছে বুকমার্ক করা। অনলাইনে অসংখ্য বুকমার্ক সাইট রয়েছে সে গুলোর মাধ্যমে প্রমোট করতে হবে।

কিভাবে বুকমার্ক করবেন :

Bookmark যে কোন সাইট বা পেজকে র‌্যান্ক করতে এবং ভিজিটর বাড়াতে সাহয্য করে থাকে। আপনি যে কোন বিষয় বুকমার্ক করতে পারেন। যেমন : ওয়েবসাইট, ব্লগসাইট, পেজ, প্রোডাক্ট রিভিউ, ইমেজ প্রভৃতি বিষয়ে বুকমার্ক করতে পারবেন।র্যাক ও ট্রাফিক পাওয়ার জন্য বুকমার্ক খুবই কার্যকরি। এছাড়া এফিকটিভ ব্যাকলিংক তৈরিতে বুকমার্ক গুরুত্বপূর্ন ভুমিকা রাখে।বুকমার্ক সাইট বিভিন্ন রকমের হতে পারে। বুকমার্ক করতে সাইটভেদে Submit, Add, Add link, Add Url ইত্যাদি বাটন থাকতে পারে।এতে ক্লিক করে আপনার পোস্টকে এড করতে হবে।প্রশ্ন হচ্ছে কিভাবে বুকমার্ক করবেন। বুকমার্ক করতে হলে প্রথমে বুকমার্ক সাইটে রেজিষ্ট্রেশন করে নিতে হবে। তারপর লগিন করে বুকমার্ক করতে হবে। বুকমার্ক করতে হলে আপনাকে ৫টি অপশনের যথাযথ প্রয়োগ করতে হবে। ৫টি অপশন হচ্ছে :

১. Url

২. Title

৩. Category

৪. Tags

৫. Description

Url এর জায়গায় আপনার ওয়েবসাইট বা ব্লগসাইট বা প্রোডাক্ট রিভিউ লিংক বসিয়ে দিন। টাইটেলের জায়গা্য় পোস্টের টাইটেল বসান। Category এর জায়গায় আপনার পোস্টটি কোন ক্যাটাগরির তা সিলেক্ট করে দিন।ট্যাগের জায়গায় আপনার পোস্ট রিলেটেড কিওয়ার্ড গুলো সেট করে দিন। আর ডিসক্রেপশনের জায়গায় আপনার পোস্টের ডিসক্রেপশন বসিয়ে দিন। তারপর ক্যাপচা চাইলে ক্যাপচা পুরুন করুন।তারপর সাবমিট বাটনে ক্লিক করুন। বাস হয়ে ‍গেল আপনার বুকমার্ক করা।

কিভাবে বুকমার্ক করা যায় বিস্তারিত :

অনলাইনে প্রতিটি কোম্পানীর সাইট বা প্রোডাক্টের বুকমার্ক করতে হয়।কারন বুকমার্ক না করলে তার সাইট র‌্যান্কে পিছিয়ে পড়বে। তখন তার সেল কম হবে।তাই প্রতিটি কোম্পানীকে প্রতিনিয়ত বুকমার্ক কাজ করতে হয়। বুকমার্ক কাজ কিভাবে করতে হয় তা দুটি উদাহরনে মাধ্যমে তুলে ধরার চেষ্টা করবো। দুটি সাইটে পেক্টিক্যালি কিভাবে বুকমার্ক করা যায় তা নিচে দেখুন ।

১. Tutpub সাইট :

প্রথমে আমি টুটপাব ডট কম সাইটে প্রবেশ করলাম। আপনি ব্রাউজার ট্যাবে এই লিংক লিখে https://tutpub.com/ সার্চ করুন। তাহলে নিচের মতো একটি ইন্টরফেস আসবে। আমি প্রথমে রেজিস্ট্রেসন করে লগিন করলাম।

লগিন করার পর এই রকম একটি পেজ আসবে। এখানে উপরে দেখুন লাল গোল করা সাবমিট বাটনে ক্লিক করতে হবে। তাহলে নিচের মতো একটি ইন্টারফেস আসবে।

এখানে লাল গোল করা Unique News URL এর জায়গার আপনি যে পোস্ট করবেন সে পোস্টের লিংক বসান। তারপর পাশে Continue বাটনে ক্লিক করুন। তারপর নিচের মতো একটি ইন্টারফেস আসবে।

এথানে Article Details এর নিচে সব গুলো ঘর পুরুন করে দিন। Story Title এর ঘরে আপনার পোস্টের টাইটেল বসান। তারপর Catagory ঘরে আপনার পোস্ট রিলেটেড ক্যাটাগরি সিলেক্ট করে দিন। Tags এর ঘরে আপনার পোস্ট রিলেটেড কিওয়ার্ড লিখে দিন। Description এর ঘরে কোন সাইট অটমেটিকেলি ডিসক্রেপশন লিখে দিবে। না দেওয়া থাকলে আপনাকে আপনার পোস্টের ডিসক্রেপশন লিখে দিতে হবে।এরপর ক্যাপচার ঘরে ক্যাপচা দেখে পুরুন করে দিন। তারপর Save Changes and Submit বাটনে ক্লিক করুন। বাছ হয়ে গেল আপনার বুকমার্ক করা।

২. Diigo সাইট :

প্রথমে আমি Diigo সাইটে রেজিষ্ট্রেশন করে লগিন করে নিলাম।সাইটি লিংংক https://www.diigo.com/ . এই সাইটে লগিন করার পর নিচের মতো একটি ইন্টারফেস আসবে।

এখানে লাল গোল করা প্লাস ( +) বাটনে ক্লিক করুন।ক্লিক করলে ড্রপ ডাউন ৪টি চিহ্ন আসবে। এখানে Bookmark বাটনে ক্লিক করুন। তারপর URL এর জায়গার আপনার পোস্টের ইউ আর এল দিন। তারপর নেক্সট বাটনে ক্লিক করুন। তারপর নিচের মতো একটি ইন্টারফেস আসবে।

এখানে Title এর ঘরে আপনার পোস্টের টাইটেল দিন। Description এর ঘরে আপনার পোস্টের কিছু অংশ কপি করে পেস্ট করে দিন। তারপর Tags এর ঘরে পোস্ট রিলেটেড কিওয়ার্ড বসিয়ে দিন। তারপর Add বাটনে ক্লিক করুন। তারপর প্রিভিউ দেখতে পাবেন। বাছ হয়ে গেল আপনার বুকমার্ক করা।

এখন এই সমস্ত বুকমার্ক কাজের একটি লিস্ট তৈরি করতে হবে। এভাবে আপনি ৫০/ ১০০ টি সাইটে বুকমার্ক করে একটি প্রুফ (proof) লিস্ট তৈরি করে রাখুন।যা বায়ারকে প্রোটফলিও হিসাবে দেখাতে হতে পারে।এছাড়া বিভিন্ন সাইটে কাজের প্রোর্টফলিও হিসাব ব্যবহার করতে পারেন। আপনার নিজের ওয়েবসাইট বা ব্লগসাইটে বুকমার্ক করুন। সাইটের র‌্যান্ক বৃদ্ধি পাবে এবং সাইটে ভিজিটর বৃদ্ধি পাবে। বুকমার্ক এফিক্টিভ এবং পাওয়ার ফুল ব্যাকলিংক হিসাবে কাজ করে।

অফপেজ এস ই ও সম্পর্কে জানতে হলে এই লিংকে ক্লিক করুন : https://www.ictcorner.com/off-page-seo/

পরিশেষে বলা হলো বুকমার্ক (Bookmark) সাইট একেকটা একাক রকমের হতে পারে। সাইটের ধরন বুঝে আপনাকে বুকমার্ক করতে হবে।অনলাইনে হাজার হাজার বুকমার্ক সাইট রয়েছে। সেগুলো আপনাকে সংগ্রহ করে নিতে হবে। সেগুলোতে রেজিষ্ট্রেশন করে আপনাকে বুকমার্ক করতে হবে। অনলাইন সাইট গুলোতে অনেক বুকমার্ক কাজ পাওয়া যায়। ফাইবার, আপওয়ার্ক, ফ্রিল্যান্সার, গুরু বিভিন্ন সাইট গুলোতে বুকমার্ক কাজ পাওয়া যায়।যা আপনি সহজে করে আয় করতে পারেন।

Related posts

Leave a Comment