ডিজিটাল মার্কেটিং ইনকাম পদ্ধতির 3টি সেক্টরে কাজ শিখে লাখ লাখ টাকা ইনকাম করুন

ডিজিটাল মার্কেটিং ইনকাম

ডিজিটাল মার্কেটিং পদ্ধতি একটি জনপ্রিয় মাধ্যম। ডিজিটাল মার্কেটিং করে ফ্রিল্যান্সাররা লাখ লাখ টাকা ইনকাম করছে। হাজার হাজার ফ্রিল্যান্সাররা ডিজিটাল মার্কেটিং সেক্টরে কাজ শিখার পিছনে ছুটছে। আপনিও ইচ্ছা করলে ডিজিটাল মার্কেটিং কোর্স করে কাজ শিখে নিতে পারেন। ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের অসংখ্য কাজ রয়েছে। তার মধ্য থেকে 3টি সেক্টরের কাজ সম্পর্কে আপনাদের সামনে তুলে ধরার চেষ্টা করবো। এই তিনটি সেক্টরের কাজ গুলো যদি সঠিক ভাবে শিখতে পারেন তাহলে আপনিও লাখ লাখ টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

ডিজিটাল মার্কেটিং কি :

ডিজিটাল পদ্ধতিতে যে মার্কেটিং করা হয় তাকে ডিজিটাল মার্কেটিং বলা হয়ে থাকে। এখন প্রশ্ন হচ্ছে ডিজিটাল পদ্ধতিটা কি ? ডিজিটাল পদ্ধতি হচ্ছে কম্পিউটার, ল্যাপটপ ও মোবাইলের মাধ্যমে ইন্টারনেট ব্যবহার করে যে মার্কেটিং করা হয় তাকে ডিজিটাল মার্কেটিং বলা হয়ে থাকে। এক কথায় বলা যায় ডিজিটাল প্রযুক্তি গুলো ব্যবহার করে যে মার্কেটিং করা হয়ে থাকে তাকে ডিজিটাল মার্কেটিং বলা হয়ে থাকে। বিস্তার অর্থে ডিজিটাল প্রযুক্তি ব্যবহার করে কোন প্রোডাক্ট বা সার্ভিস মানুষের দোর গড়ায় পৌছে দেওয়াই হচ্ছে ডিজিটাল মার্কেটিং।

ডিজিটাল মার্কেটিং ইনকাম পদ্ধতির সহজ 3টি সেক্টর :

বর্তমান যুগ ইন্টারনেটের যুগ। ইন্টারনেটের কারনে বর্তমান বিশ্ব এখন হাতের মুঠোয়। যে কোন জিনিস সম্পর্কে জানতে চাইলে ইন্টারনেটে সার্চ করলেই আমরা জানতে পারি। আবার কোন সার্ভিস বা প্রোডাক্ট পেতে চাইলে ইন্টারনেটের মাধ্যমে অর্ডার করলেই সংগে সংগে চলে আসছে। মানুষ এখন ঘরে বসে সব কিছু পেতে চায়। তাই অনেক ব্যবসায়ী উদ্দ্যোক্তা ডিজিটাল মার্কেটিং পদ্ধতির দিকে ছুটছে। ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের বিভিন্ন পদ্ধতি রয়েছে। তার মধ্য থেকে সহজ তিনটি পদ্ধতি সম্পর্কে আপনাদের সামনে তুলে ধরছি।

1. সোসাল মিডিয়া মার্কেটিং (SMM) :

SMM বা Social Media Marketing হচ্ছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম। যে গুলোর মাধ্যমে মানুষ একে অপরের সাথে কথা-বর্তা আদান প্রদান, চ্যাট বা ভাব বিনিময় করে থাকে। সোসাল মিডিয়া মার্কেটিং একটি শক্তিশালী মাধ্যম। এই সোসাল মিডিয়ার মাধ্যমে আপনি আপনার প্রোডাক্ট বা সার্ভিস মানুষের কাছে সহজে পৌছে দিতে পারেন। বর্তমানে সোসাল মিডিয়া এতটাই জনপ্রিয় যে ছোট বড় সব ধরনের মানুষ সোসাল মিডিয়া গুলোতে এক্টিভ থাকে। তাই যে কোন ব্যবসায়ীর জন্য তার প্রোডাক্ট মানুষের কাছে পৌছে দেওয়ার জন্য অন্যতম প্লাটফর্ম হচ্ছে সোসাল মিডিয়া প্লাটফর্ম। সোসাল মিডিয়া প্লাটফর্ম গুলো হচ্ছে –

  • ফেসবুক
  • ইনিষ্টাগ্রাম
  • টুইটার
  • লিংদিন
  • পিন্টারিস্ট
  • ইউটিউব

অবশ্যই পড়ুন :

কিভাবে ফেসবুক মার্কেটিং করবেন

কিভাবে ইউটিউব মার্কেটিং করবেন

2. সার্চ ইন্জিন মার্কেটিং (SEM) :

SEM বা Search Engine Marketing একটি শক্তিশালী মার্কেটিং পদ্ধতি। সার্চ ইন্জিন গুলো হচ্ছে গুগুল, ইয়াহু, বিং, ইয়ান্ডেক্স ইত্যাদি। এগুলোতে সঠিক ভাবে অপটিমাইজ করে আপনার সাইটকে টপে আনতে হবে। তাহলে সহজে মানুষ আপনার সাইট দেখতে পাবে। সার্চ ইন্জিন মার্কেটিংয়ের মাধ্যমে সহজে আপনি ট্রাফিক আনতে পারবেন। যত ট্রাফিক বেশি আসবে ততো আপনার প্রোডাক্ট সেল জেনারেট হওয়ার সম্ভাবনা থাকবে। তাই সার্চ ইন্জিন মার্কেটিং করতে হলে আপনাকে কিওয়ার্ড রিসার্চ করতে হবে। কোন কিওয়ার্ড এর ভলিয়ম কত, কম্পিটিশন কেমন ইত্যাদি জানতে হবে। তাহলে সহজে আপনার কিওয়ার্ড সার্চ ইন্জিনের টপে আনতে পারবেন। এছাড়া গুগুল এডস ক্যাম্পেইন, বিং এডস, ইয়াহু এডস ইত্যাদি ক্যাম্পেইন পরিচালনা করতে হবে। এডস ক্যাম্পেইন পরিচালনা করলে ওয়েবসাইটে বা ব্লগসাইটে ‍দ্রুত ট্রাফিক বৃদিধ পাবে। তাহলে সহজে আপনার প্রোডাক্ট মার্কেটিং করে সেল জেনারেট করতে পারবেন। SEM মার্কেটিং ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের সবচেয়ে সাশ্রয়ী রিটার্ন আনতে সহায়তা করে থাকে।

3. সার্চ ইন্জিন অপটিমাইজেশন ( SEO) :

SEO এর এভরিভিশন হচ্ছে Search Engine Optimization . সার্চ ইন্জিন অপটিমাইজেশন এমন একটি প্রক্রিয়া যার মাধ্যমে সহজে কোন কিওয়ার্ডকে র‌্যান্ক করা যায়। সার্চ ইন্জিন অপটিমাইশেনের ফলে ইউজার কোন কিওয়ার্ড লিখে সার্চ করলে সহজে তা সার্চ ইন্জিনের টপ পেজে দেখতে পায়। কোন ওয়েবসাইট বা ব্লগসাইটকে গুগুলের প্রথম পেজে বা কোন সার্চ ইন্জিনের প্রথম পেজে আনতে হলে এস ই ও বা সার্চ ইন্জিন অপটিমাইজেশন করতে হয়। আর সার্চ ইন্জিন অপটিমাইজেশন করতে হলে কিছু প্রক্রিয়া অবলম্বন করতে হয়। তা হচ্ছে অনপেজ এস ই ও এবং অফপেজ এস ই ও করতে হবে। অনপেজ এস ই ও হচ্ছে ওয়েবসাইটে ভিতরে যে এস ই ও করা হয় তাকে অনপেজ এস ই ও করা বলা হয়ে থাকে। আর ওয়েবসাইটের বাহিয়ে যে এস ই ও করা হয় তাকে অফপেজ এস ই ও করা বলা হয়ে থাকে। মোট কথা কোন ওয়েবসাইট বা ব্লগসাইটকে গুগুলের প্রথম পেজে আনতে হলে তাকে অনপেজ, অফপেজ এবং কিছু টেকনিক্যাল এস ই ও করতে হবে। একবার যদি আপনার ওয়েবসাইট বা ব্লগসাইটকে গুগুলের প্রথম পেজে আনতে পারেন তাহলে সেখান থেকে লাখ লাখ টাকা ইনকাম করতে পারবেন। এস ই ও সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে হলে নিচের আর্টিকেল গুলো পড়ুন।

আপনাকে অবশ্যই পড়তে হবে :

কিভাবে অনপেজ এস ই ও করবেন

কিভাবে অফপেজ এস ই ও করবেন

পরিশেষে কথা হচ্ছে ডিজিটাল মার্কেটিং ইনকাম পদ্ধতি এক ব্যাপক ও বিশাল সেক্টর। এই মার্কেটিং পদ্ধতি অবলম্বন করে সহজে আপনার ব্যবসায় ইনকাম করতে পারবেন এবং সাফল্য বয়ে আনতে পারেন। ডিজিটাল মার্কেটিং পদ্ধতি শিখা কোন কঠিন কাজ নয়। আপনি গুগুল ও ইউটিউব থেকে সার্চ করে আর্টিকেল ও ভিডিও দেখে সহজে শিখে নিতে পারবেন। যদি এই পদ্ধতি তিনটি সঠিক ভাবে শিখে নিতে পারেন তাহলে আপনার কাজের কোন অভাব হবে না। অসংখ্য কাজ পাবেন এবং এই সকল কাজ করে অনায়াসে লাখ লাখ টাকা ইনকাম করতে পাবেন। ডিজিটাল মার্কেটিং সম্পর্কে আরো জানতে হলে ক্লিক করুন। ধন্যবাদ।

Related posts

Leave a Comment