রাউটার (Router) কি এবং রাউটার কত প্রকার কি কি বিস্তারিত

Router

বর্তমান বিশ্ব ইন্টারনেট বিশ্ব। গোটা বিশ্বে ইন্টারনেটের ছড়াছড়ি। ইন্টারনেট ছাড়া বিশ্ব অচল। আমরা ইন্টারনেটের উপর নির্ভরশীল। আর এই ইন্টারনেটকে প্রভাইড করার জন্য প্রয়োজন রাউটার। রাউটারের মাধ্যমে সহজে ইন্টারনেটকে ব্যবহার করা যায়। রাউটারের মাধ্যমে ব্রডব্যান্ড লাইন থেকে ইন্টারনেট সংগ্রহ করে বিভিন্ন ডিভাইসে প্রভাইড করা যায়। রাউটার দিয়ে ইন্টারনেট একসেস করা হয়। রাউটার নির্দিষ্ট কেবলের মাধ্যমে ইন্টারনেট রিসিভ করে এবং তার বিহিন ভাবে বিভিন্ন ডিভাইসে ছড়িয়ে দিয়ে থাকে। আজকে আমরা আলোচনা করবো রাউটার (Router) কি এবং রাউটার কত প্রকার কি কি বিস্তারিত। রাউটার (Router) কি : রাউটার হচ্ছে একটি ইলেক্ট্রনিক ডিভাইস। যা…

আমাজন এফিলিয়েট মার্কেটিং (Amazon Affiliate Marketing) কিভাবে শুরু করবো

Amazon Affiliate Marketing

আমাজন হচ্ছে বিশ্বের সবচেয়ে বড় ই-কমার্স ওয়েবসাইট। বিগ ফোরের মধ্যে একটি। গুগুল, ইউটিউব, ফেসবুক ও আমাজন – এই চারটি বড় সাইটের মধ্যে আমাজন একটি। রিভিনিউ এর ক্ষেত্রে দ্বিতীয় স্থান। আমাজন হাজার হাজার প্রোডাক্ট সেল করে থাকে। রিভিনিউ আসে মিলিয়ন, মিলিয়ন। আমাজন বিজনেসকে দুই পদ্ধতিতে পরিচালনা করে থাকে। এক, আমাজন এফিলিয়েট মার্কেটিং (Amazon Affiliate Marketing)। আর দুই, আমাজন সেলার মার্কেটিং (Amazon seller Marketing) এর মাধ্যমে। এই দুটি পদ্ধতিতে আমাজন ব্যবসা পরিচালনা করে থাকে। একটি ব্লগসাইট বা ওয়েবসাইট থেকে বিজনেস করতে চাইলে আমাজন প্রোডাক্ট মার্কেটিং করে বিজনেস পরিচালনা করতে পারেন। সঠিক ভাবে…

আমাজন কি ! আমাজন এফিলিয়েট একাউন্ট (Amazon Affiliate Account) কিভাবে খুলবো

Amazon Affiliate Account

আমাজন একটি বনের নাম। যাকে পৃথিবীর ফুসফুস বলা হয়ে থাকে। এই বনের নাম অনুসারে বর্তমানে একটি ওয়েব সাইটের নামকরন করা হয়। তার নাম আমাজন ডট কাম। আমাজন একটি শপিং ওয়েবসাইট। এখানে অনলাইনের মাধ্যমে পন্য কেনা বেচা করা হয়। এখানে হাজার হাজার প্রোডাক্ট রয়েছে এবং হাজার হাজার কর্মী রয়েছে। কোন কর্মী সরাসরি জড়িত আবার কোন কর্মী এফিলিয়েট মার্কেটিং করে ইনকাম করছে। এই কোম্পানী পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করে থাকে। এই কোম্পানী প্রথমে বই কেনা বেচার মধ্য দিয়ে কার্যক্রম শুরু করলেও বর্তমানে বিভিন্ন প্রোডাক্ট সেল জেনারেট করে কার্যক্রম পরিচালনা করছে।…

“ফ্রিল্যান্সিং এর সহজ কাজ ৫টি (5 Easy Tasks of Freelancing)”

ফ্রিল্যান্সিং এর সহজ কাজ

আপনি কি একজন শিক্ষার্থী, চাকুরিজীবী বা গৃহিনী। অনলাইন থেকে আয় করতে চান ! তাহলে এই পোস্টটি আপনার জন্য। আপনি এই পোস্টটি ফলো করলে পাট টাইমে ফ্রিল্যান্সিং করে অনলাইন থেকে আয় করতে পারবেন। ফ্রিল্যান্সিং একটি স্বাধীনপেশা বা মুক্তপেশা। ফ্রিল্যান্সিং কঠিন কাজ হলেও ফ্রিল্যান্সিং এর সহজ কাজও রয়েছে। আজ আমি এমন ধরনের কাজ নিয়ে আলোচনা করবো যে ধরনের কাজ করলে আপনি ঘরে বসে আয় করতে পারবেন। আমাদের দেশের লক্ষ লক্ষ তরুন ফ্রিল্যান্সিং করে অনলাইনের মাধ্যমে বিদেশী রেমিটেন্স নিয়ে আসছে। সরকারী চাকুরি পর্যাপ্ত না থাকায় অনেক শিক্ষিত বেকার ছেলে মেয়েরা ফ্রিল্যান্সিং পেশাকে গ্রহন…

এফিলিয়েট মার্কেটিং কি এবং এফিলিয়েট মার্কেটিং (Affiliate Marketing) কিভাবে করবো

Affiliate Marketing

এফিলিয়েট মার্কেটিং ( Affiliate Marketing ) অনলাইনে ইনকামের একটি জনপ্রিয় মাধ্যম। অনলাইনে সেল জেনারেট করে আয় করার একটি অন্যতম উপায়। বর্তমানে হাজার হাজার ফ্রিল্যান্সাররা এফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় করছে। আপনিও ইচ্ছা করলে এফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় করতে পারেন। এই করোনা কালিন সময়ে মানুষ ঘরে বসে সব কিছু পেতে চায়। তাই মানুষ অনলাইনের স্মরনাপন্ন হয়। অনলাইনে কেনাকাটা করতে চায়। আপনি চাইলে অনলাইনের মাধ্যমে কোন কোম্পানীর পন্য এফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় করতে পারেন। আজকে আমরা আলোচনা করবো এফিলিয়েট মার্কেটিং কি এবং এফিলিয়েট মার্কেটিং (Affiliate Marketing) কিভাবে করবো। এফিলিয়েট মার্কেটিং (Affiliate Marketing) কি…

ইউটিউব (Youtube) কি এবং কিভাবে ইউটিউব থেকে আয় করবেন

ইউটিউব থেকে আয়

ইউটিউব একটি ভিডিও শেয়ারিং সফটওয়ার। ইহার যাত্রা শুরু হয় ২০০৫ সালে। সে থেকে অদ্যবদি পর্যন্ত দুর্দান্ত গতিতে ছুটে চলছে। আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। ইউটিউব চিনে না এমন মানুষ খুবই কম আছে। ইউটিউবে বিভিন্ন রকমের ভিডিও আপলোড করা হয়। প্রতিদিন অসংখ্য ভিডিও আপলোড হচ্ছে। আপনি আমার মতো অসংখ্য ইউটিউবাররা এই সব ভিডিও আপলোড করছে। এই সব ভিডিও আপলোড করে আয় করছে। ইউটিউব থেকে আয় করতে চাইলে একটি ইউটিউব চ্যানেল থাকতে হবে। সেখানে ভিডিও আপলোড করে আয় করতে পারবেন। আজকে আমরা আলোচনা করবো ইউটিউব (Youtube) কি এবং কিভাবে ইউটিউব থেকে আয়…

“ ফাইভার প্রোফাইল ( Fiverr Profile ) কিভাবে তৈরি করবেন ”

Fiverr frofile

ফাইভার একটি জনপ্রিয় মার্কেটপ্লেস। ফাইভারে কাজ করতে হলে একাউন্ট তৈরি এবং ফাইভার প্রোফাইল (Fiverr Profile) সঠিক ভাবে সেটাপ করতে হবে। ফাইবারের প্রোফাইলই বলে দিবে আপনি কোন ক্যাটাগরির কাজ করবেন। আপনার প্রোফাইল দেখে বায়াররা বুঝতে পারবে আপনি কোন ক্যাটাগরির কাজ করবেন। ফাইভার প্রোফাইল দেখে বায়াররা সে অনুযায়ী কাজের অফার করবে। যদিও কাজের জন্য গিগ অফার করতে হয়। তারপরও কাজ পাওয়া না পাওয়া অনেকাংশে প্রোফাইলের উপর নির্ভরশীল। ফাইভারে আপনার সম্ভাব্য গ্রাহকদের সাথে পরিচয় তৈরি এবং আপনার পেশাদার শৈলী উপস্থাপনের জন্য প্রোফাইল প্রয়োজন। তাই ফাইভার প্রোফাইল সঠিক ভাবে সাজাতে হবে। আজকে আমরা আলোচনা…

ফাইভার (Fiverr) কি এবং কিভাবে ফাইভারে একাউন্ট তৈরি করবেন

Fiverr

ফাইভার (Fiverr) অনলাইন মার্কেট প্লেসের মধ্যে অন্যতম। এখানে হাজারো বায়ার ও সেলারের আগমন ঘটে। এখানে বিভিন্ন রকমের কাজ পাওয়া যায়। যেমন: ওয়েব ডিজাইন, ওয়েব ডিভোলোপমেন্ট, গ্রাফিক্স ডিজাইন, ভিডিও এডিটিং, ফেসবুক মার্কেটিং, ইউটিউব মার্কেটিং ইত্যাদি। এই মার্কেটপ্লেস ২০১০ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। ইহার জনপ্রিয়তা তুঙ্গে। এখানে সেলারেরা তাদের কাজের সেম্পল হিসাবে গিগ তৈরি করে রাখে। বায়ারদের যে গিগ পছন্দ হয় তাদের সাথে কন্টাক্ট করে কাজের ওর্ডার করে থাকে। কাজ শেষে ফাইবারের মাধ্যমে ডলার পেমেন্ট দিয়ে থাকে। ফাইভার ২০% কেটে রেখে বাকী ডলার বা টাকা সেলারদের পেমেন্ট করে থাকে। এই পোস্ট বিগানারদের জন্য…

গিগ (Gig) কি ? কিভাবে ফাইভার গিগ (Fiverr Gig) তৈরি করা যায়

Fiverr Gig

গিগ একটি অফারের নাম। ফাইভারে কাজ করতে হলে ফাইভার গিগ (Fiverr Gig) তৈরি করতে হয়। ফ্রিল্যান্সিং প্লাটফর্মের মধ্যে অন্যতম মার্কেট প্লেস হচ্ছে ফাইভার ডটকম। ফাইভারে ৫ ডলার থেকে শুরু করে ১ হাজার ডলার পর্যন্ত কাজ পাওয়া যায়। এখানে প্রায় সব ধরনের কাজ পাওয়া যায়। যেমন: গ্রাফিক্স ডিজাইন, ওয়েব ডিজাইন, ওয়েব ডিভোলপমেন্ট, এসইও, ভিডিও ইডিটিং, ফেসবুক মার্কেটিং, বুকমার্কিং ইত্যাদি। কিন্তু এই কাজ গুলো করতে গেলে আপনাকে গিগ তৈরি করতে হয়। কিভাবে গিগি তৈরি করবেন ? আসুন জেনে নেই কিভাবে গিগ তৈরি করা যায়। আজকের আলোচ্য বিষয় হলো গিগ (Gig) কি ?…

ফ্রিল্যান্সিং(Freelancing) কি ? বাংলাদেশী ফ্রিল্যান্সিং সাইট থেকে আয় করুন

Freelancing

বর্তমান তরুন প্রজন্মের কাছে ’ফ্রিল্যান্সিং’ শব্দটি একটি আলোচিত বিষয়। তারা বেকারত্বের অভিশাপ থেকে মুক্তি পেতে ফ্রিল্যান্সিংয়ের কথা চিন্তা ভাবনা করে থাকে। কিন্তু কিভাবে করবে তা ভেবে কুলকিনারা পায় না। ফ্রিল্যান্সিং একটি মুক্তপেশা ঠিকই কিন্তু এই পেশাটিকে আঁকড়ে ধরতে হলে অনেক ত্যাগ ও ধর্যৈর পরীক্ষা দিতে হয়। নিজেকে অনলাইনের কোন একটি বিষয়ে দক্ষ হতে হয় বা স্কীল অর্জন করতে হয়। ফ্রিল্যান্সিং কাজে পরিপূর্ন দক্ষতা অর্জন করে এ পথে আসতে হয় নচেৎ পথ হারিয়ে গহীন অরন্যে পড়ে থাকতে হবে। কোন কূল কিনারা পাবেন না। যদি ধর্য্য ও ত্যাগের মাধ্যমে সঠিক স্কীল অর্জন…